সর্বশেষ সংবাদ
◈ নাঙ্গলকোটে এবার ১৬ স্বাস্থ্য কর্মীসহ সহ করোনা আক্রান্ত ২৫ ◈ প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের তালিকায় ব্যাপক অনিয়ম ও আত্মীকরনের অভিযোগ! ◈ কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে কর্মক্ষম পুরুষহীন পরিবারের মাঝে ইচ্ছেঘুড়ির মাছ মাংস বিতরণ ◈ নাঙ্গলকোটে ঈদ উপহার সামগ্রী নিয়ে সুবিধাবঞ্চিতদের পাশে আলিয়ারার আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ◈ করোনা থেকে মুক্তি চাই – মোহাম্মদ সোহরাব হোসেন ◈ শিকল পায়ে সাম্য –মোঃ এম.রহমান ◈ নাঙ্গলকোটের পেরিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে আইনজীবীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ:শিশুসহ আহত ৩ ◈ করোনা মানবিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত! নাঙ্গলকোটে করোনা আক্রান্ত এনায়েতের পাশে চিওড়া সমাজকল্যাণ পরিষদ ◈ আমাদের আলোকিত সমাজের’ পক্ষে থেকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের উপহার ◈ আগৈলঝাড়ায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা মোক্তাধির হোসেন তরুর ঈদ উপহার বিতরণ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

অবশেষে ভুল ভাঙলো

29 March 2020, 7:58:58

রামিম চৌধুরী, খুলনাঃ বাংলাদেশ! কিছুটা হলেও তোমার ইতিহাস জানি। ৫২’ এর ভাষা আন্দোলন বা ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ মানুষ শহীদ হওয়া স্বচোক্ষে দেখার সুযোগ হয়নি। তখনকার মানুষের মধ্যে যে মুক্তির উদ্যোম ছিলো তার কিছু চলচ্চিত্র দেখে আফসোস হতো যে কেনো তখন জন্মালাম না। আফসোস হতো এই ভেবে যে ঐক্যের সেই সময়টা হয়তো ছুটি নিয়েছে এ দেশ থেকে।
হঠাৎ করে ২০২০ সালে পুরো পৃথিবীকে গ্রাস করার লক্ষ্যে ছুটছে করোনা ভাইরাস। পৃথিবীর কয়েকটি দেশে হত্যাযোগ্য চালানোর পর করোনার প্রবেশ বাংলাদেশে। তখন আবারও যুদ্ধের প্রস্তুতি। কিন্তু ৭১ থেকে ভাইরাসের সাথে যুদ্ধটা একটু আলাদা। ভাইরাসটি অত্যন্ত ছোঁয়াছে হওয়ার কারনে হঠাৎ করে পৃথিবীর কয়েকটি দেশের মতো সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য লকডাউন ঘোষনা করা হলো বাংলাদেশেও। দেশের প্রশাসনের সাথে সাথে মানুষের ঘরে থাকা নিশ্চিত কারার জন্য মাঠে নামলো সেনা সদস্যরাও। ২০১৮ সালের একটি পরিসংখ্যান অনুযায়ী বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ২০.৮ শতাংশ দরিদ্র এবং ১১.৩ শতাংশ অতি দরিদ্র। আর নি¤œ মধ্যবিত্ত এবং মধ্যবিত্তদের কথাতো বাদই দিলাম। লকডাউন মানেই সবকিছু বন্ধ। দরিদ্রদের কাজ নেই মানে খাবার নেই, আছে হাহাকার।
বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে সবার মনে বাড়ছে ভীতি। লকডাউন হওয়ার পরতো সকলে যার যার বাড়ি চলে গেলো কিন্তু ওদের কি হবে ভাবছিলাম একা একা। এছাড়ার দেশে করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য নেই হাসপাতাল, সামান্য সংখ্যক কিট পরিক্ষা করার জন্য, চিকিৎসকদের পিপিই(পারসোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্ট) রয়েছে সীমিত সংখ্যক। কি হবে দেশের? ভাবতে ভাবতে হঠাৎ চোখে পড়লো কিছু যোদ্ধাদের। যারা সেচ্ছায় নিজের জীবনের ঝুকি নিয়ে দেশে অতি দরিদ্রদের হাতে খাবার তুলে দিচ্ছে আর বলছে ঘরে ফিরে যাও। আবারও সেই তরুন যোদ্ধারা এগিয়ে এসেছে। ফিরে এসেছে একতা। একদিকে এক ঝাক তরুন স্বউদ্যোগে রাস্তায়-অলিতে-গলিতে স্প্রে করছে জীবানুশক, অন্যদিকে খাবার নিয়ে এক দল স্বেচ্ছাসেবী ছুটছে গরিবদের দ্বারে দ্বারে। দেশের বিভিন্ন স্থানে তৈরী করা হয়েছে স্বেচ্চাসেবী দল।
দেশের এই ক্রান্তি লগ্নে বিত্তশালীরাও বাড়িয়ে দিয়েছে সহযোগীতার হাত। আকিজ গ্রæপ তৈরি করছে করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ, মিটফোর্ড হাসপাতাল ও হলি ফ্যামেলি হাসপাতালে বিনামূল্যে মাস্ক ও হ্যান্ড সেনিটাইজার দিচ্ছে প্রাণ ও আরএফএল কম্পানী। দেশের ব্যক্সিমকো গ্রæপ চিকিৎসকদের সুরক্ষার্থে ৬ হাজার বিশেষ গাউন ও ১৫ কোটি টাকার ঔষধ সামগ্রি সরবরাহ করবে। বিদেশ ফেরত যাত্রীদের হেলথ স্ক্রিনিং করার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ৫টি থার্মাল স্ক্যানার দিয়েছে বেসরকারী সামিট গ্রæপ। সমগ্র দেশের ঋণ কর্মসূচীর কিস্তি জমাদান ২৪ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষনা সহ লাখো মানুষের কাছে স্বাস্থ্য বার্তা পৌছে দেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্য সম্মত উপায়ে মাস্ক তৈরী শুরু করেছে ব্র্যাক। করোনা পরিক্ষার কিট কেনার জন্য রিহ্যাবের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে ২৫ লাখ টাকা। মাস্ক তৈরী করে বিনামূল্যে সরবরাহ করছে বিজিএমইএ। শুনলাম বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন তার অধিনস্থ ৩টি উপজেলার ১৫’শ মানুষের এক মাসের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন। এছাড়াও চিকিৎসকদের ৭ হাজার পিস পিপিই, ১০ হাজার পিস মাস্ক, ১৬ হাজার পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহ দিয়েছেন চিকিৎসা সামগ্রী।
এভাবে মানুষের পাশে দাড়াচ্ছেন অনেক রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। দেশে ঘটে যাওয়া বহু ঘটনায় দেশের প্রতি তিক্ততা বাড়লেও কমেনি ভালোবাসা। সার্থ আর আত্মতৃপ্তি বিসর্জন দিয়ে আবারও যুদ্ধে সবাই। বাংলাদেশ অমানুষের দেশ নয়, অবশেষে আমার ভুল ভাঙলো।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: