শিরোনাম
◈ ক্ষমতার পতন ও অপেক্ষার মিষ্টি ফল-মহসীন ভূঁইয়া ◈ নাঙ্গলকোটে দুই গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তাকে খাল বানিয়ে নিরুদ্দেশ ঠিকাদার! ◈ নাঙ্গলকোটের তিনটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের টিম ◈ নাঙ্গলকোটে শত বছরের পানি চলাচলের ড্রেন বন্ধ ,বাড়িঘর ভেঙ্গে ২’শ গাছ নষ্টের আশংকা ◈ পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে খরচ বাড়লো ৪ হাজার কোটি টাকা ◈ অরুণাচল সীমান্তে বিশাল স্বর্ণখনির সন্ধান! চীন-ভারত সংঘাতের আশঙ্কা ◈ কুমিল্লার বিশ্বরোডে হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ইউলুপ- লোটাস কামাল ◈ দুই মামলায়খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আজ ◈ মাদকবিরোধী অভিযানএক রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ ◈ নাঙ্গলকোটে চলবে ৩ দিন ব্যাপী মাটি পরীক্ষা

আজ থেকে আমরা স্যাটেলাইট ক্লাবের গর্বিত সদস্য

১৩ মে ২০১৮, ১১:৪৬:১৪

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সফল উৎক্ষেপণের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্পেসএক্স-এ দেয়া এক ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজ থেকে আমরা স্যাটেলাইট ক্লাবের গর্বিত সদস্য।’

প্রথম চেষ্টায় ব্যর্থ হওয়ার পর দ্বিতীয় দফায় মহাকাশে সফল উড্ডয়ন করে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে বঙ্গবন্ধু-১ এর সফল উৎক্ষেপণ সম্পন্ন হয়।

পুনর্নির্ধারিত সময়ে ফ্যালকন-৯ রকেটের নতুন সংস্করণ ব্লক ফাইভ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটকে নিয়ে রওনা হয় নিজস্ব কক্ষপথে। ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের লঞ্চপ্যাড ৩৯ এ থেকে মহাকাশের বুকে লাল সবুজের পদচিহ্ন আঁকে বঙ্গবন্ধু-১।

প্রধানমন্ত্রী ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আজ আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের একটি দিন। আজ আমরা মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সফল উৎক্ষেপণ করেছি।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির অগ্রযাত্রার ধারাবাহিকতায় যোগ হয়েছে আরও একটি মাইলফলক। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে আজ আমরা মহাকাশে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেছি।’

‘আজ শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। যিনি দীর্ঘ ২৪ বছর বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগ্রামে জেল-জুলম ও নির্যাতন সহ্য করে উপহার দিয়েছেন স্বাধীন ও সার্বভৌমত্ব বাংলাদেশকে। স্মরণ করছি মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদকে।’

‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ উন্নত মর্যাদাশীল দেশ হিসেব বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি অনুধাবন করেছিলেন বহির্বিশ্বের সঙ্গে অব্যাহত যোগাযোগ রক্ষা করতে না পারলে প্রগতির পথে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে না। এজন্য স্বাধীনতার মাত্র তিন বছরের মধ্যে ১৯৭৪ সালে তিনি রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ায় প্রথম ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপন করেন। যার সাহায্যে তথ্য-উপাত্ত আদান-প্রদানের মাধ্যমে বহির্বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশের সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের সুযোগ তৈরি হয়।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আজ আমরা জাতির পিতার সেই স্বপ্ন বাস্তাবায়নে আরেক ধাপ এগিয়ে গেলাম নিজস্ব উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে। তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে আজ যুক্ত হচ্ছে স্যাটেলাইট বা উপগ্রহ। আজ থেকে আমরা স্যাটেলাইট ক্লাবের গর্বিত সদস্য। প্রবেশ করলাম এক নতুন যুগে। এ স্যাটেলাইট দিয়ে ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, তাজাকিস্তান, কাজাকিস্তান ও উজবেকিস্তানের অংশ বিশেষে আমরা সেবা দিতে পারব।’

‘ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অধীন বিটিআরসির থেকে প্রকল্প গ্রহণ করে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নির্মাণ ও উৎক্ষেপণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বিটিআরসি ও স্যাটেলাইট কোম্পানির কর্মীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি স্যাটেলাইট নির্মাতা ও উৎক্ষেপণকারী উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মীদেরও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ধন্যবাদ জানাচ্ছি ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের সরকার ও জনগণকে এ কাজে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য। পাশাপাশি ধন্যবাদ জানাই রাশিয়াকে, তাদের কক্ষপথ আমাদের ভাড়া দেয়ার জন্য।’

প্রধানমন্ত্রী সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করে আরও বলেন, ‘আপনারা সবাই দোয়া করবেন যাতে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সফল উৎক্ষেপণের মাধ্যমে আমরা আমাদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য পূরণ করতে পারি। সবাইকে আবারও ধন্যবাদ জানিয়ে সফল উৎক্ষেপণ ঘোষণা করছি।’

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: