এবার নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলেই জুতার সংকেত | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ ◈ অনুকূল পরিবেশ হলে এইচএসসি পরীক্ষা

এবার নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলেই জুতার সংকেত

18 June 2017, 9:59:59
অনলাইন ডেস্ক :
কোনো নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলেই জুতা সংকেত দিতে থাকবে।তখন নারী চাইলে ঐ ব্যক্তিকে আটক করতে পারবেন। রক্ষা করতে পারবেন নিজেকে।এমনই একটি জুতা আবিষ্কার করেছেন ভারতের ১৭ বছরের এক কিশোর। এ জুতায় বিশেষ ধরনের একটি সার্কিট ও রিচার্জেবল ব্যাটারি বসিয়ে দেয়া হয়েছে। হাঁটলেই এটা চার্জ নেবে। যে যত বেশি হাঁটবেন, জুতাও তত বেশি চার্জ ধরে রাখবে। এটাকে বলে ‘পিয়েজোইলেকট্রিক ইফেক্ট’। ধর্ষণের চেষ্টা করার সময় এ জুতা দিয়ে ধর্ষণকারীকে স্পর্শ করলেই তার শরীরে ০.১ অ্যাম্পিয়ার বিদ্যুৎ প্রবাহিত হবে। সাথে সাথে এ-সংক্রান্ত একটি বার্তা স্থানীয় থানা ও ওই নারী পরিবারের সদস্যদের মোবাইলে চলে যাবে। এর ফলে ধর্ষণকারীকে ধরা সহজ হবে। ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরিয়ে দেয়ার অভিনব এ জুতা উদ্ভাবন করেছে ১৭ বছরের এক কিশোর। এ জুতার নাম দেয়া হয়েছে ‘ইলেকট্রোশু’ অর্থাৎ বৈদ্যুতিক জুতা। নারীদের ধর্ষণ থেকে বাঁচানোর এ বৈদ্যুতিক জুতা উদ্ভাবন করেছেন ভারতের হায়দরাবাদের সিদ্ধার্থ মণ্ডলা।ভারতে বিভিন্ন সময় ধর্ষণের খবর প্রকাশিত হবার পর সিদ্ধার্থের চিন্তায় আসে নারীদের রক্ষার। এরপরই তিনি এ জুতা আবিষ্কার করেন।
খবর : দ্য বেটার ইন্ডিয়া ডট কম।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: