কানক কান্তি দাস ঝিনাইদহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত আবার ডব্বা হারুনের | Amader Nangalkot
শিরোনাম...
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ জমকালো আয়োজনে বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র ওমান শাখার কমিটি গঠন ◈ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কুমিল্লা দক্ষিণ জেলার কমিটিতে ভোলাকোটের দুই রতন ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

For Advertisement

কানক কান্তি দাস ঝিনাইদহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত আবার ডব্বা হারুনের

28 December 2016, 10:55:40

ঝিনাইদহ  অফিস :

ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কনক কান্তি দাস (চশমা প্রতীকে) ৫’শ ৩৭ ভোট পেয়ে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী জাতীয় পার্টি সমর্থিত এম হারুন অর রশিদ (আনারস প্রতীকে) পেয়েছেন ৩’শ ৯২ ভোট এবং জাসদ সমর্থিত প্রার্থী মুন্সী এমদাদুল হক (মোটর সাইকেল প্রতীকে) পেয়েছেন ১ ভোট। বিকালে ভোট গননা শেষে প্রার্থী এবং প্রিজাইডিং অফিসার সুত্রে এ ফলাফল পাওয়া গেছে। বুধবার সকাল ৯ টা থেকে শুরু হয়ে বিরতিহীন ভাবে ভোটগ্রহণ চলে দুপুর ২ টা পর্যন্ত। নির্বাচন উপলক্ষে ৫’শ ৫২ জন পুলিশ ও আসনার সদস্য, ২ প্লাটুন বিজিবি, ৪ টি মোবাইল টিম ও র‌্যাব সদস্যরা টহল দিয়েছে। নির্বাচনে ৬৭টি ইউনিয়নের ৮৭১ জন চেয়ারম্যান-মেম্বর, ৬টি পৌরসভার ৭৮ জন মেয়র ও কাউন্সিলর এবং ৬টি উপজেলার চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যনসহ মোট ৯৬৪ জন ভোটার ১৫ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। জেলার ১৫টি ভোট কেন্দ্রে ছিল কড়া পুলিশ পাহারা। নির্বাচনে দায়িত্ব পালনরত মেজিস্ট্রেটরাও কঠোর মনোভাব পোষন করেন। ফলে ভেট কেন্দ্রে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। জেলা পুলিশের মুখপত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী জানান শান্তিপুর্ন ভোট হয়েছে। ভোট কেন্দ্রে ১জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও বিচারিক হাকিমগণ দায়িত্ব পালন করেন । সেই সাথে মোতায়েন করা হয় এক প্লাটুন বিজিবি। ১৫ টি মোবাইল টিমও ১৫টি স্ট্রাইকিং ফোর্স অতিরিক্ত হিসেবে ভোট কেন্দ্র এলাকায় টহল প্রদান করে। জেলা নিবার্চন অফিস সুত্রে জানা গেছে জেলা ব্যাপী ভোট গ্রহনের জন্য ১৫ টি ভোট কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। এর মধ্যে মহিলা ভোট কেন্দ্র ছিল ৫টি । চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, সংরক্ষিত মহিলা ১৮ এবং সাধারন সদস্য পদে ৬১ জন প্রতিদ্বন্দিতা করেন। প্রথম বারের এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন ৩ জন।

For Advertisement

Unauthorized use of news, image, information, etc published by Amader Nangalkot is punishable by copyright law. Appropriate legal steps will be taken by the management against any person or body that infringes those laws.

Comments: