সর্বশেষ সংবাদ
◈ মারছে মানুষে মানুষ!- মোঃ: জহিরুল ইসলাম ◈ নাঙ্গলকোট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদকের নামে ভূয়া আইডি খুলে প্রতারনার ফাঁদ ◈ “কাজী জোড়পুকুরিয়া সমাজকল্যাণ পরিষদ” কমিটি গঠন ◈ ছাত্রদলের সভাপতি পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে বাগেরহাটের ছেলে হাফিজুর রহমান ◈ চৌদ্দগ্রাম থানার ওসির নির্দেশে কবরে রেখে যাওয়া বৃদ্ধ মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করলো পুলিশ ◈ নাঙ্গলকোটে ইভটিজিংয়ে প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী হামলা প্রতিবাদে মানববন্ধন ◈ আজ টাইগারদের দায়িত্ব বুঝে নেবেন ডোমিঙ্গো ◈ জাতীয় দিবসগুলো শিক্ষকদের ছুটি হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে কেন? ◈ কুমিল্লা মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় বাড়ছে লাশের সারি; নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮ জনে; পরিচয় মিলেছে সবার ! ◈ কুমিল্লার লালমাই উপজেলায় বাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে ৭ যাত্রী নিহত

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে কলেজছাত্রীকে কান ধরে উঠবোস, অধ্যক্ষ অবরুদ্ধ

৬ আগস্ট ২০১৯, ১০:২৩:০৬

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের হোমনাবাদ আদর্শ ডিগ্রী কলেজের ৫ শিক্ষার্থীকে কান ধরে রোদে দাঁড় করিয়ে রাখার প্রতিবাদে শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। এ সময় কলেজের মুল ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করে তারা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বরখাস্তের দুই বছর পর ফিরে এসেই শিক্ষার্থীদের সাথে অসাধাচরন করতে থাকে। কলেজের ভিতরে কেন্টিন করার জন্য বারবার তাগাদা দিলেও অধ্যক্ষের অনিহায় তা কখনো হয়ে উঠেনি। তাই ছাত্র শিক্ষক সকলে বাধ্য হয়েই বাহিরের দোকানে গিয়ে নাস্তা করতে হয়।

সোমবার কলেজের একাদ্বশ শ্রেণীর ৫জন ছাত্রী গেইটের সামনের দোকানে গিয়ে নাস্তা করে আসে। পরে অধ্যক্ষ মীর জাহাঙ্গীর আলম তাদের ডেকে এনে কলেজ মাঠে কান ধরে উঠবস করায় ও পাঁচ মিনিট কান ধরে রোদে দাঁড় করিয়ে রাখে। এর প্রতিবাদ জানালে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি শ্যামলকে লাঞ্চিত করে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে অধ্যক্ষ। কলেজের প্রদর্শক আমিনুল ইসলাম ও অধ্যাপক আবু বকর ছিদ্দিক তাকে এসব কাজে সহযোগিতা করেছেন বলেও দাবী করেন শিক্ষার্থীরা।

এসব ঘটনার পর সকল ছাত্র-ছাত্রী মিলে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় তারা কলেজের প্রদান ফটকে তালা লাগিয়ে দেয় শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে। প্রায় ২ ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকার পর গভর্নিং বডির সদস্যগন স্থানীয় আবু তাহের বিএসসি, বাচ্চু মিয়া, হারুনুর রশিদ ও ভুট্টু মেম্বার সহ নের্তৃবৃন্দরা এসে ঈদুল ফিতরের পর কলেজ গভর্নিং বডির সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার আশ্বাস দিলে বিক্ষোভ স্থগিত করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে অধ্যক্ষ মীর জাহাঙ্গীর আলমের কার্যালয়ে সাংবাদিকরা গেলে তিনি কোন কথা না বলেই নিজ কার্যালয় থেকে দ্রুত বেরিয়ে যান। এরপর আর তাকে পাওয়া যায়নি।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: