কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৯) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ ◈ অনুকূল পরিবেশ হলে এইচএসসি পরীক্ষা ◈ কুমিল্লায় বিপুল ইয়াবাসহ দম্পতি আটক!

কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৯) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে

12 September 2019, 3:42:15

কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৯) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে গ্রাম্য মাতব্বরের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পাঁচদিন পর বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। মামলার খবর পেয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমান (৬৫)।গত ৬ সেপ্টেম্বর মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের বাখরাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ধর্ষণের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ায় এ নিয়ে তোলপাড় চলছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার গ্রামের চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ২০ টাকার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে বাড়ির পাশের একটি জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে ছিদ্দিকুর রহমান। কে বা কারা ঘটনাটি দেখে অজ্ঞাত স্থান থেকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণ করে। এ ভিডিও বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ফেসবুকে এ ভিডিও দেখে ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমান গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয় এক ইউপি সদস্যের যোগসাজশে এ ভিডিও দেখিয়ে গ্রামের অপর মাতব্বররা ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন বলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।বুধবার খবর পেয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান পুলিশ নিয়ে ওই গ্রামে গিয়ে ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে থানায় এনে লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করেন। পরে পুলিশের সহযোগিতায় ওই শিশুর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

শিশুটির ভাই বলেন, ঘটনার পর মাতব্বররা আমাদের কিছু টাকা দিতে চেয়েছিল কিন্তু আমরা তা গ্রহণ করিনি, আমরা ধর্ষকের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, ধর্ষকের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ কিংবা তথ্যপ্রমাণ আমরা পাইনি। স্থানীয় মাতব্বররা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল কিন্তু খবর পেয়ে অভিযোগ ছাড়াই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় এনে অভিযোগ গ্রহণ করেছি। বৃহস্পতিবার ভুক্তভোগী শিশুর মেডিকেল পরীক্ষা করা হবে।তিনি বলেন, ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: