কুমিল্লায় সৈয়দ শামসুল হকের ৩য় প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা

১০ অক্টোবর ২০১৯, ৯:২৯:৪৪

বাপ্পি মজুমদার ইউনুস-জেলা প্রতিনিধি-কুমিল্লা।দেশবরেণ্য সব্যসাচী লেখক কুড়িগ্রামের সন্তান সৈয়দ শামসুল হকের ৩য় প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সৈয়দ হক স্মরণ সভা উদযাপন কমিটি। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে এই স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। এসময় জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন কবির প্রতিকৃতিতে মোমবাতি জালিয়ে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান।

বাংলা সাহিত্যের প্রতিটি ক্ষেত্রে তিনি বিচরণ করেছেন অনাবিল ছন্দে। কবিতা, উপন্যাস, নাটক, ছোটগল্প, কাব্যনাট্য, চিত্রনাট্য, গান, প্রবন্ধ, অনুবাদসহ সাহিত্যের প্রায় সকল ক্ষেত্রে সাবলীল লেখনী ক্ষমতার জন্য তাকে ‘সব্যসাচী লেখক’ নামে অভিহিত করা হয়।

তার লেখকজীবন প্রায় ৬২ বছরব্যাপী বিস্তৃত। এই বিশাল সময় ধরে সৈয়দ হক নিজ মেধা, মনন ও সৃজনীশক্তির মাধ্যমে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যকে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছেন এবং নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন সাহিত্যের এক তুলনাহীন অবস্থানে।

সৈয়দ হক স্মরণ সভা উদযাপন কমিটির আয়োজনে কবির সহধর্মিনী আনোয়ারা সৈয়দ হক জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে কবির লেখা ও জীবনী নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক কথা বলেন। উক্ত অনুষ্ঠানে কবির লেখা ওর জীবনে নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবশেন করা হয়। আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবুল ফজল মীর’র সভাপতিত্বে ও মোহাম্মদ আরিফুল হাসানের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন লেখক ও সাংবাদিক আরশাদ সিদ্দিকী, কবি টোকন ঠাকুর, কথা সাহিত্যিক নূর কামরুন নাহার, ছড়াকার জহিরুল হক, হাসান ইমাম মজুমদার ফটিক, ডঃ আলী হোসেন চৌধুরী, সৈয়দ আহমদ তারেক, পাপড়ি বসু প্রমুখ

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক রতন ভৌমিক প্রণয়, সমন্বয়ক সৈয়দ মুহাম্মদ আয়াজ মাবুদ, সদস্য শরীফ আহমেদ অলি, গাজী মোহাম্মদ ইউনুস, মাহমুদ কচি, দীপ্র আজাদ কাজল, অধ্যাপক শাহিন শা ও এ কিউ আশিক।

উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন কবি বিজন দাস, আহমেদ কবির, তাসলিমার চুমকি, খলিলুর রহমান শুভ্র প্রমুখ।

সঙ্গীত পরিবেশন করেন, ওমর ফারুক, সেওতি সাহা সৃজা, রাজিয়া সুলতানা আরজু।
কবিতা পাঠ করেন, সুমন সালাউদ্দিন, তাসলিমা সরকার লিয়া, মোঃ আরিফুল হাসান সহ আরো অনেকে।

এদিকে তিন বছর পেরিয়ে গেলেও কবির সমাধিকে ঘিরে এক একর জমির ওপর স্মৃতি কমপ্লেক্স নির্মাণের কাজ আটকে পরায় দু:খ প্রকাশ করেছেন লেখকের সহধর্মীনি আনোয়ারা সৈয়দ হক। তিনি কমপ্লেক্সের কাজ দেখে মরে যেতে চান বলে অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের অবগত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন দেশ বরন্য এই কবির স্মৃতি ধরে রাখতে তিনি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি আহ্বান জানান। কবিকে নিয়ে আবেগঘন স্মৃতিচারণ করেন।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: