কেমন হলো মাশরাফিদের প্রস্তুতি? | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

কেমন হলো মাশরাফিদের প্রস্তুতি?

7 September 2016, 8:40:39

এক মাসের বেশি সময় ধরে অনুশীলন। এরপর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে খেলা হলো তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ। শেষ প্রস্তুতি ম্যাচটি হলো কালই। আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ড সিরিজের আগে নিজেদের কেমন ঝালিয়ে নিলেন মাশরাফি-সাকিবরা? সাদা চোখেই ধরা পড়েছে—বোলারদের প্রস্তুতি ভালো, ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স নিয়ে অতৃপ্তি থেকেই যাচ্ছে।

লাল ও সবুজ দলে ভাগ হয়ে খেলেছেন ৩০ জনের প্রাথমিক দলে থাকা খেলোয়াড়েরা। অবশ্য বিসিবির হাইপারফরম্যান্স (এইচপি) দলে থাকা মেহেদী মিরাজ, শুভাশিস রায় ও আবু হায়দারও সুযোগ পেয়েছেন প্রস্তুতি ম্যাচে।

তিন ম্যাচেই অলআউট হয়েছে প্রথমে ব্যাটিং করা দল। দলীয় সর্বোচ্চ রান ২৪৫। ইনিংস গড়ে রান ২১২.০৩। দুই শর নিচে ছিল তিনটি ইনিংস। কোনো ব্যাটসম্যানই ছুঁতে পারেননি তিন অঙ্ক। অবশ্য ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মুশফিকুর রহিম বেশ উজ্জ্বল। তিন ম্যাচে দুই হাফ সেঞ্চুরিতে ২১০ গড়ে বাংলাদেশ দলের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের রান ২১০। ২৫ আগস্ট প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ না খেললেও ৩ ও ৬ সেপ্টেম্বর হওয়া পরের দুটিতে অসাধারণ খেলেছেন সাকিব আল হাসান। দুই ম্যাচে ২ ফিফটিতে ৫৫ গড়ে বাঁহাতি অলরাউন্ডার করেছেন ১১০ রান। মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস ও শুভাগত হোম পেয়েছেন একটি করে হাফ সেঞ্চুরি। মুশফিক-সাকিব বাদে কারও ব্যাটিংয়েই ধারাবাহিকতা দেখা যায়নি। আঙুলের চোটের কারণে খেলেননি তামিম ইকবাল।

প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা নিষ্প্রভ থাকলেও মিনহাজুল আবেদীন সেটি নিয়ে উদ্বিগ্ন নন। আফগানিস্তান সিরিজের আগে সব ঠিক হয়ে যাবে বলেই আশা বিসিবির প্রধান নির্বাচকের, ‘যে উইকেটে খেলা হচ্ছে, সবই বাউন্সি। বাউন্সি উইকেটে মানিয়ে নেওয়ার বিষয় থাকে। অনেক দিন পর ওরা খেলছে। এখনই বলা যাবে না তাদের ব্যাটিংয়ে আমরা সন্তুষ্ট কি না। আশা করি, ধীরে ধীরে তারা উন্নতি করবে। আর কন্ডিশনিং ক্যাম্পের পর পরই ম্যাচ খেলা কঠিন। একটা বিশ্রামের পর দেখবেন ভালো খেলবে।’

ব্যাটসম্যানদের অনুজ্জ্বল পারফরম্যান্সের বিপরীতে আলো ছড়িয়েছেন বোলাররা। যদিও এককভাবে এগিয়ে নেই কেউই। এটি এক দিক দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাত্রাও বোঝায়। মাশরাফি বিন মুর্তজা, রুবেল হোসেন, তাইজুল ইসলাম ও মোশাররফ হোসেন নিয়েছেন সর্বোচ্চ ৫টি করে উইকেট। প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটিং-বোলিং যেমনই হোক, সব মিলিয়ে সন্তুষ্ট মিনহাজুল, ‘অনুশীলন ম্যাচ ও মূল ম্যাচের তুলনা করা উচিত নয়। এখানে মানিয়ে নেওয়া ও নানা পরিকল্পনা থাকে। হয়তো কোচের উপদেশ থাকে, এভাবে-ওভাবে খেলতে হবে। তবে তারা যেভাবে খেলছে তাতে সন্তুষ্ট।’

প্রস্তুতি ম্যাচে এমনিতে হারানোর কিছু থাকে না। ভালো করলে আত্মবিশ্বাস বাড়ে, ব্যর্থ হলে সুযোগ থাকে সংশোধনের। প্রস্তুতি ম্যাচের এই শিক্ষাটা মাশরাফিরা নিশ্চয়ই কাজে লাগাবেন আফগানিস্তান সিরিজে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: