কোটচাঁদপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে সন্ত্রাসীরা | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

কোটচাঁদপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে সন্ত্রাসীরা

20 June 2018, 9:34:50

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
মেয়েকে উত্ত্যক্ত ও অশ্লীল কথাবার্তার প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক মারপিট করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে সন্ত্রাসীরা। ঘটনাটি ঘটেছে কোটচাঁদপুর উপজেলার বলাবাড়িয়া গ্রামে ঈদের দিন বিকালে। এঘটনায় এলাকায় মারামারির সৃষ্টি হলে উভয় পক্ষের তিন জন আহত হয়। তাদেরকে কোটচাঁদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ওই এলাকার মজনুর রহমান ও আরিফ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, ঈদের দিন বিকালে উপজেলার বলাবাড়িয়া কাজী পাড়ার আলাউদ্দীনের মেয়ে তৃষা (১১) বাড়ির সামনে দাড়িয়ে ছিল। এ সময় এলাকার কিছু উশৃংখল ছেলে মেয়েটিকে অশ্লীল কথাবার্তা ও বাজে ইঙ্গিত করে। পরে মেয়েটি তার পিতা আলাউদ্দীনের কাছে বিষয়টি জানালে আলাউদ্দীন ওই সকল ছেলেদের অবিভাবকদের কাছে যায়। এ সময় এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী পুলিশের দালাল খ্যাত গোলাম হোসেন কাহারের ছেলে মতিয়ার রহমান কালু ও তার বাহিনীর সদস্যরা আলাউদ্দীনের বেধরক মারপিট করে ফেলে রাখে। পরে এলাকাবাসী আলাউদ্দীনকে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত আলাউদ্দীন জানান, আমার মেয়ে তৃষা বলাবাড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। তার বয়স মাত্র ১১ বছর। এই ছোট্ট মেয়েটিকে ঈদের দিন বিকালে অশ্লীল কথাবার্তা ও বাজে ইঙ্গিত করে একই গ্রামের কাহার পাড়ার আব্দুল খালেকের ছেলে তোতা, বাহারউদ্দীনের ছেলে সাইদ, ফজলুর রহমানের ছেলে রুবেল, শাহাজাহানের ছেলে জাহিদুল, আরশেদ আলীর ছেলে নয়ন, রেজেক আলীর ছেলে উজ্বলসহ ৮/১০। এই ছেলেরা প্রায়ই তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। আমি প্রতিবাদ করায় মতিয়ার রহমান কালু ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকে মারপিট করেছে। এ ঘটনায় পরপরই এলাকাবাসী কাহার পাড়ার উপর ক্ষোভে ফেটে পড়ে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা সৃষ্টি হলে ওই এলাকার ইউপি চেয়াম্যান মিজানুর রহমান খান ও পুলিশের হস্তক্ষেপে কিছুটা শান্ত হয়। এরই মধ্যে কাহার পাড়ার বাদল (৩২) ও বাহার আলী (৫০) এলাকাবাসীর গণ পিটুনি আহত হয়। বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে আলাউদ্দীর বাদী হয়ে সোমবার স্থানীয় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে। এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর থানার সেকেন্ড অফিসর ব্রজবল্লভ সাধু বলেন আমরা অভিযোগ পেয়েছি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x