খুলনাকে হারিয়ে টানা তিন জয় পেলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ ◈ অনুকূল পরিবেশ হলে এইচএসসি পরীক্ষা
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

খুলনাকে হারিয়ে টানা তিন জয় পেলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

3 December 2016, 9:35:41

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স চতুর্থ আসরে অনেক নড়বড়ে শুরু করলেও শেষ দিকে এসে ফিরে পেয়েছে ছন্দ। আজ (শুক্রবার) ৩৭ তম ম্যাচে খুলনা টাইটানসকে ৫ উইকেটে হারিয়ে টানা তিন জয় পেয়েছে কুমিল্লা।

টসে জিতে প্রথম বল করার সিদ্ধান্ত নেন কুমিল্লার অধিনায়ক মাশরাফি। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই রিকি ওয়েসেলকে আউট করে অধিনায়কদের সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণ করেন মোহাম্মদ শরিফ। এরপর আব্দুল মজিদ ও হাসানুজ্জামান মিলে প্রাথমিক উইকেট পতনকে সামলিয়ে নেন। তবে ৬ষ্ঠ ওভারে বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই আব্দুল মজিদকে বোল্ড করে ৩০ রানের জুটি ভাঙ্গেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। এরপর হাসানুজ্জামানকেও সাজঘরে ফেরান কুমিল্লার অধিনায়ক। খুলনার অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নিকোলাস পুরান মিলে রানের গতি বাড়াতে গেলে আবার আঘাত হানেন মাশরাফি। এবার ৮ বলে ১৪ রান করা ভয়ঙ্কর পুরানকে আউট করেন তিনি। খুলনার ইনিংসের বাকিটুকু অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ’র গল্প। এক পাশে আগলে রেখে ৩৮ বলে অপরাজিত ৪০ রান করেন এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ১৪১ রান করে খুলনা টাইটানস। কুমিল্লার পক্ষে মাশরাফি ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রানে নেন তিন উইকেট। এছাড়া মোহাম্মদ শরিফ, রশিদ খান ও সাইফুদ্দিন ১ টি করে উইকেট নেন।

১৪২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয় নি কুমিল্লার। দলীয় ১ রানেই আহমেদ শেহজাদকে হারাতে হতে হয় তাদের। তবে দ্বিতীয় উইকেট ইমরুল কায়েস ও মারলন স্যামুয়েলস মিলে ৪৯ রান যোগ করে শুরুর ধাক্কা সামাল দেয়। ২০ রান করা ইমরুলের বিদায়ের পর মাত্র ৩ রানেই সাজঘরে ফেরেন খালিদ লতিফ। রানরেটের গতি বাড়াতে চারে উঠে আসেন অধিনায়ক মাশরাফি। মাত্র ১১ বলে তিন বিশাল ছক্কায় ২০ রান করেন এই ক্রিকেটার। এর মাঝে বিপক্ষ দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের এক ওভারে মারেন দুই ছয়। দলীয় ৮৪ রানে মাশরাফি বিদায় নিলেও রানরেটের ব্যবধান অনেক কমে যায়। এরপর শান্ত মাত্র ৪ রান করেই আউট হয়ে যান। তবে ৬ নাম্বারে নামা লিটন কুমার দাস ও ক্রিজের একপ্রান্তে আগলে রাখা মারলন স্যামুয়েলস মিলে অপরাজিত ৪২ রানে জুটি করে ৮ বল বাকি থাকতেই কুমিল্লার জয় নিশ্চিত করেন। মারলন স্যামুয়েলস ৫৭ বলে ৬৯ রান  ও লিটন কুমার দাস ১১ বলে ২৪ রান করেন। খুলনার পক্ষে হাওয়েল ২ টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ 
খুলনা টাইটান্সঃ ১৪১/৬ 
রিয়াদ ৪০*, হাসানুজ্জামান ২৯, মাশরাফি ৩/১৬
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সঃ ১৪২/৫
স্যামুয়েলস ৬৯*, লিটন ২৪*, মাশরাফি ২০, হাওয়েল ২/২৫

ফলাফলঃ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৫ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ঃ মারলন স্যামুয়েলস (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স)

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: