খুলনার গল্লামারী বটিয়াঘাটা কাসেম সড়কে ময়ুর নদীর  কাঠের ব্রীজটি মারাত্মক ঝুকিপুর্ন | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

খুলনার গল্লামারী বটিয়াঘাটা কাসেম সড়কে ময়ুর নদীর  কাঠের ব্রীজটি মারাত্মক ঝুকিপুর্ন

8 February 2017, 11:04:52

মহিদুল ইসলাম শাহীন বটিয়াঘাটা

খুলনা , উপজেলার সবুজবাগ ৪নং কাসেম সড়কের সাথে সংযুক্ত ময়ুর নদীর উপর কাঠের ব্রীজটি প্রায় ১/২ বছর সংস্কারের অভাবে জনসাধারণের চলাচলের সম্পুর্ন অনুুপোয়োগি হয়ে পড়েছে।
সরোজমিন ঘুরে জানাগেছে, গল্লামারী ময়ুর নদীর শাখা খালের উপর অবস্থিত প্রায় ২/৩ শত ফুট লম্বা কাঠের ব্রীজটি বেশ কয়েকটি জায়গায় ভে্ঙ্গে নিচে ঝুলে গেছে আবার কিছু কিছু জায়গায় কাঠ ফাকা হয়ে গেছে। কিন্ত সবুজ বাগ পল্লীর মানুষের জিবনের ভাগ্য বদলাতে ও সবুজ বাগ জামালুল কোর আন মাদ্রাসার ৫/৬ শত ছাত্র ছাত্রী ও শিক্ককবৃন্দ জিবনের ঝুকি নিয়ে ঐ কাঠের ব্রীজটির উপর দিয়ে যাতায়াত করছে। যে কোন সময় মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এলাকা বাসীরা জানান, এই ব্রীজটি ১২/১৪ বছর আগে কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয়। কিন্ত প্রতি বছর এলাকার যুব সমাজের সহযোগীতায় কোন রকম জোড়াতালি দিয়ে এখনও পর্যন্ত চলছে।
ঐ ব্রীজটির উপর দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার লোক যাতায়াত করে থাকে। ইতি মধ্যে বেশ কয়েকটি ছোট বড় দুর্ঘটনা ব্রীজটির উপর ঘটেছে। অনেক রাজনৈতিক নেতা বা জনপ্রতিনিধিরা ব্রীজটি সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেও ব্রীজটি সংস্কার তো দুরের কথা কোন খোজ খবর পর্যন্ত নেয়নি। যে কোন সময় ব্রীজটি ভে্ঙ্গে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।  এলাকার ছোট মিয়া, মাসুদ রানা, মিলন সেখ,আবু সাঈদ,লিটন শেখ,আরাফাত,জাহাঙ্গীর,
আবারুল,আলিমসহ এলাকা বাসীদের সাথে নিয়ে এবং তৌহিদ, এম এ চৌধুরী, ময়না সাহেবের সহযোগীতায় আমরা অনেক বার ব্রীজটি সংস্কার করেছি। এলাকার একাধীক ব্যক্তি জানান,মাসুদের নেতৃত্বে প্রতি বছর দু এক বার ব্রীজটি সংস্কার করা হয়। এ ব্রীজটি সংস্কারের জন্য স্হানীয় মেম্বর, চেয়ারম্যান ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছি। এলাকার সচেতন মহলের দাবী উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খান ও নব নির্বাচিত খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুন অর রশীদের দৃষ্টি আকার্ষন করেছন। তারা যেন এই এলাকার মানুষের দুঃখের কথা বিবেচনা করে এখানে একটা পাকা ব্রীজের জোর দাবী জানান এলাকা বাসি।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: