চিহ্নিত সাবেক মাদক ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম রবি ভাল হতে চান। | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

চিহ্নিত সাবেক মাদক ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম রবি ভাল হতে চান।

8 November 2016, 8:15:25

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহ শহরের চাকলা পাড়ার এক সময়ের চিহ্নিত সাবেক মাদক ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম রবি ভাল হতে চান। কিন্তু বিশেষ মহল তাকে ভাল হতে দিচ্ছে না। স্বাভাবিক জীবন যাপন করে এনজিও প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে রবি সামাজিক উন্নয়নের কাজ করতে চাইলেও পদে পদে বাঁধা আসছে। মাদক ব্যবসা ছেড়ে তিনি এখন “রবির আলো সমাজ কল্যান সংস্থা” নামে একটি এনজিও পরিচালনা করছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ঝিনাইদহ পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত আবেদনে রবির স্ত্রী মোছাঃ কোকিলা আক্তর রানু এক মানবিক আবদনে জানিয়ে এ সব তথ্য জানান সাংবাদিকদের। আবেদনে স্ত্রী কোকিলা আক্তর রানু উল্লেখ করেন, গত নভেম্বর রাত ৮ টার দিকে আমার স্বামী মোবাইল কেনার জন্য ঝিনাইদহ শহরের যান।

ঝিনাইদহ শহরের প্রধান ডাকঘরের সামনে ভাই শাহীনের সাথে থাকাবস্থায় সাদা পোশাকে পুলিশ প্রশাসনের লোক পরিচয় দিয়ে স্বামী রবিকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যান। যার মাইক্রোবাস নং-চট্ট মেট্রো চ-৫১-০০৭৪।

মাইক্রোবাসের ড্রাইভারের নাম ইমরান বলে পরে আমরা জানতে পেরেছি। এরপর হইতে আমার স্বামীর কোন সন্ধান পাচ্ছি না। পুলিশ বা ডিবির লোকেরা আমার স্বামীকে আটকের কথা অস্বীকার করছে। আমি সদর থানায় ডায়েরি করতে গেলেও আমার ডায়েরী গ্রহন করা হয়নি। এখন আমার স্বামীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নং-০১৯২৮-৫৬৩৮৫৮ বন্ধ পাওয়া যাইতেছে। স্বামীকে না পেয়ে আমি অথৈ সাগরে পড়েছি।

কলেজ পড়–য়া দুইটি কন্যা এবং আমার পরিবারের লোকজন মর্মাহত। আমার স্বামীর খোঁজ না পেলে কন্যা দুইটি অসহায় হয়ে যাবে। বন্ধ হয়ে যাবে তাদের লেখাপড়া। কোকিলা আক্তর রানু জানান, আমার শ্বাশুড়ী অতি বৃদ্ধা এবং অন্ধ। ছেলের শোকে তিনিও মৃত্যু শয্যায় শায়িত আছে। যে কোন সময় তিনি ইন্তেকাল করতে পারেন। কোকিলা আক্তর রানু মানবিক কারণে স্বামীকে ফেরৎ দাবী পাওয়ার দাবী জানিয়েছেন।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: