জনপ্রিয় কবি আমজাদ হোসাইন- আজিম উল্যাহ হানিফ | Amader Nangalkot
শিরোনাম...
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ জমকালো আয়োজনে বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র ওমান শাখার কমিটি গঠন ◈ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কুমিল্লা দক্ষিণ জেলার কমিটিতে ভোলাকোটের দুই রতন ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

For Advertisement

জনপ্রিয় কবি আমজাদ হোসাইন- আজিম উল্যাহ হানিফ

14 October 2016, 10:03:05

আজিম উল্যাহ হানিফ
বহু প্রতিভার অধিকারী এক অদম্য দৃষ্টি প্রতিবন্ধি যুবকের নাম আমজাদ হুসাইন। কখনও দেখা হয়নি তার এই পৃথিবীর অপরুপ সৌন্দর্য্য। দেখার প্রবল ইচ্ছা থাকলেও হয়নি পিতা-মাতা, স্ত্রী, সন্তানসহ কোন আপনজনদের প্রতিচ্ছবি। এই পৃথিবীর অপূর্ব সৌন্দর্য্য, হৃদয়ের কোটায় একে নিয়েছেন আপনজনদের প্রতিচ্ছবি। এই পৃথিবীকে দেখর ইচ্ছা প্রবল, আর এই প্রবল ইচ্ছা থেকেই শুরু করেছেন সাহসী এক জীবন সংগ্রাম। কারো নিকট হাত অর্থের জন্য হাত পাতেন নি। তার কোন ইচ্ছাও ছিলনা, তার একটাই চাওয়া দৃষ্টি ফিরে পাওয়া। অন্যের পড়া শুনে শুনে শিখে ও একজন সাহায্যকরীর মাধ্যমে লিখে ইতিমধ্যে তিনি এরাবিক লাইনে সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জন করেছেন। জীবন সংগ্রামের অংশ হিসাবে লিখেছেন একাধিক কাব্য গ্রন্থ ও উপন্যাস। প্রাইভেট টিউশনিসহ নিজের গড়ে তুলেছেন একটি বহুমুখী শিক্ষা একাডেমী। এত কিছুর পর ও তিনি চিকিৎসার অর্থে যোগান ব্যর্থ। জায়গায় জায়গায় হয়েছেন প্রতারিত। এই হতভাগ্য যুবক,জনপ্রিয় কবি আমজাদ হুসাইনের জন্ম কুমিল্লা জেলা চোদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের বাসন্ডা গ্রামে। পিতা মোঃ রুহুল আমিন মাতা মোসাঃ খদীজা হাজারীর চার সন্তানের সর্ব কনিষ্ট তিনি। অধ্যয়নরত অবস্থায় লেখার একটি হাস্যরস সমৃদ্ধ-ব্যাঙ্গত্বক কবিতা বিশ্বপ্রেমিক কবিতার মাধ্যমে লেখালেখি শুরু। ছাপা হয় বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিক,সাপ্তাহিক ও মাসিক পত্রিকায়। ২০০৮ সালে তার প্রকাশিত প্রথম কাব্য গ্রন্থ দেশের মাটি সে বছরের ২১ শে বইমেলায় পাঠকদের মাঝে যথেষ্ট সাড়া জাগায়। এরপর একে একে মোট আটটি কাব্য ও উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে ইতিমধ্যে। প্রকাশিত অন্যবইগুলো হলো রক্তাক্ত জামা (কাব্য), পরম প্রেমের পড়শে (উপন্যাস), উদাসী (উপন্যাস), ডিজিটাল ভন্ড ( রম্য রচনা) ,নির্বাক তরুনী (উপন্যাস), ব্যথার নদী (কাব্য), সোনালী চাদর (কাব্য)। এছাড়া ও দেশ ও মানুষ (দেশাত্মকবোধক কবিতা), সোনার পাখি (ছড়া) সহ আরও ৬টি পান্ডুলিপি রয়েছে যা প্রকাশের স্বপ্ন দেখেন এখনো। সঠিক পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে এ স্বপ্ন ও ফেকাশে হওয়ার আশংকা রয়েছে। সহজ সরল মিষ্টি ভাষী আমজাদ হোসাইন পরতে পরতে হয়েছে প্রতারিত।প্রতারণার শিকারের বিষয়ে দীর্ঘশ্বাস ফেলে তিনি জানান, আমার লেখা তৃতীয় পান্ডুলিপি পরম প্রেমের পড়শে (উপন্যাসটি) ঢাকাস্থ একতা প্রকাশনী কর্তপক্ষ ২০০৯ সালে পান্ডুলিপি নিয়ে যায়। পরে বইটি অন্য আরেকজনের নামে ছাপিয়েছেন তারা। আমি তাদের সাথে অনেক বার যোগাযোগ করতে চেয়েও ব্যর্থ হই। ২০১০ সালে শব্দলিপি প্রকাশনা সংস্থা উদাসী উপন্যাসটি খরচ বাবদ আমার কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা নিয়ে বইটি প্রকাশের পর আমার সাথে আর কোন যোগাযোগ করেনি। আমি যোগাযোগে ব্যর্থ হই। সত্য কথা প্রকাশনা থেকে ২০১১ সালে ডিজিটাল ভন্ড (রম্য রচনা) বইটি প্রকাশিত হয়। প্রকাশনা বাবদ আমার কাছ থেকে অগ্রিম ১২ হাজার টাকা নিয়ে যায়। প্রকাশের পর তারা আমাকে মাত্র ৫০ কপি বই ছাড়া আর কিছুই দেয়নি। এরপর থেমেই যায়নি আমার কলম। অনেক বড় ধরনের আশ্বাস এর বিনিময়ে প্রিভেইল গ্রুপ ২০১২ সালে স্বত্ব কিনে নেন ব্যথার নদী নামক কাব্যগ্রন্থটির। সে বছরেই বইটি প্রকাশিত হয় সত্য কথা প্রকাশনী থেকে। প্রিভেইল গ্রুপ তাদের গ্রাহক শুভাকাংখীদের মাঝে বইটি সৌজন্য কপি বিলি করে বেশ সুনাম র্অজন করে। পরে আমাকে চিকিৎসা বাবদ ১৫ টাকা দেয়। আমজাদ হোসাইনকে এত সব প্রতারণাও থামিয়ে রাখতে পারেনি আলোর মুখ দেখার স্বপ্ন । দুনিয়ার আলো যে তাকে দেখতেই হবে। সে স্বপ্নেই থেকেই ২০১২ সালে আবারও তৈরী করেন সোনালী চাদর নামক একটি কাব্যগ্রন্থ। এবার প্রিভেইল গ্রুপের পথ অনুসরণ করে আইসিএল গ্রুপ। চিকিৎসার সকল খরচ বহন করবে বলে কাব্যগ্রন্থটি সকল স্বত্ব কিনে নেন তারা। যথা সময়ে তারা গ্রন্থটি প্রকাশ করে সত্য কথা প্রকাশনী থেকে। তাদের গ্রাহক,কর্মকর্তাসহ শুভাকাংখীদের মাঝে বইটির সৌজন্য কপি হিসেবে বিলি করে বেশ সুনাম অর্জন করে আইসিএল গ্রুপ। বিনিময় আইসিএল গ্রুপ মাত্র ১০ হাজার টাকা দেয় বইয়ের লেখক,জনপ্রিয় কবি আমজাদ হোসাইনকে। অথচ বইটির প্রকাশনা খরচ হয়েছে ৪০ হাজার টাকা। যা আমজাদ হোসাইন নিজেই বহন করেন। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী আমজাদ হোসাইনের আলো দেখার স্বপ্ন অন্ধকারেই রয়ে গেল। জীবনের পরতে পরতে এত সব প্রতারণার অনেকটা অভিমানেই নিজেকে সব কিছু থেকে আড়াল করে নিতে চেয়েছিল এই জনপ্রিয় কবি ও লেখক। কিন্তু পারেন নি তার সবচেয়ে কাছের মানুষটির জন্য। সে ভালোবাসার মানুষ নুরজাহান তার হৃদয় উজাড় করা ভালবাসাও উৎসাহে সে এগিয়ে যাচ্ছেন এক অনিশ্চিত স্বপ্নের দেশে। নুর জাহানের চাওয়া তবুও বেছে থাকুক তার এই স্বপ্নের পুরুষটি। তার সঙ্গী হয়ে হাজার বছর । চেষ্টাও অব্যাহত স্বামীর দৃষ্টি ফিরে পাওয়ার। এই দম্পতির ভালবাসার ফসল ৩ বৎসর বয়সী একমাত্র ছেলে মো: সালমান আরেফিন নুহ। লেখক ও কবি আমজাদ হোসাইন এত সব সমস্যার পরও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে ইতিমধ্যে গড়ে তুলেছেন একটি ব্যক্তিগত লাইব্রেরী (পাঠাগার) তার সংগ্রহে রয়েছে হরেক রকমের প্রায় দেড় সহ¯্রাধিক বই। এমন সাদা মনের একজন মানুষই হলেন আমজাদ হোসাইন।
লেখক: কবি ও সাংবাদিক

For Advertisement

Unauthorized use of news, image, information, etc published by Amader Nangalkot is punishable by copyright law. Appropriate legal steps will be taken by the management against any person or body that infringes those laws.

Comments: