টঙ্গীতে কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণ, নিহত ২৫ | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

টঙ্গীতে কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণ, নিহত ২৫

10 September 2016, 5:18:12

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:

টঙ্গীর বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় তাম্পাকো ফয়েলস লিমিটেড নামে একটি প্যাকেজিং কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে দগ্ধ হয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫ জনে। তাদের মধ্যে একজন নারীও রয়েছেন। দগ্ধ হয়েছেন আরও অর্ধশতাধিক।নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। শনিবার ভোররাতে কারখানাটিতে আগুন লাগে। নিহতদের মধ্যে আটজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- কারখানার শিফট ইনচার্জ শুভাষ, প্রিন্টিং সহকারী রফিকুল ইসলাম, নিরাপত্তা প্রহরী হান্নান, অপারেটর মামুন, আনোয়ার, জয়নাল, ক্লিনার শংকর ও রেদোয়ান। বাকি হতাহতদের নামপরিচয় জানা যায়নি। বয়লার বিস্ফোরণে পাঁচতলা ভবনের একাংশ ধসে গেছে। আগুন নেভাতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট। কারখানাটি কিসের ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো না হলেও স্থানীয়রা জানান, এটি একটি প্যাকেজিং কারখানা। কতজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো না হলেও টঙ্গী হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানা যায় সেখানে ১৬ জনের লাশ আছে। সকালে সাড়ে ১১টার পর কারখানাটি থেকে আরও একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। হাসপাতালটিতে আরও কয়েকজন ভর্তি রয়েছেন। দগ্ধদের মধ্যে ২২ জনকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করার পর সেখানে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। কারখানাটিকে আর কোনো শ্রমিকের মৃতদেহ আছে কিনা দমকল বাহিনীর কর্মকর্তারা তা বলতে পারছেন না। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর সার্স কমিটি করে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে বলে ফায়ার সার্ভিস জানায়। জয়দেবপুর ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা মো. রফিকুজ্জামান জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট কাজ করছে। আহতদের টঙ্গী ৫০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নেয়া হয়েছে। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন দগ্ধদের বার্ন ইউনিটের ১০১ এবং ১০৩ নম্বর কক্ষে রাখা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, ভবনের ভেতরে আরও অনেক শ্রমিক আটকা পড়েছেন। তারা বেশ কয়েকজনের লাশ দেখতে পেয়েছেন। বাহির থেকে দু-তিনটি পোড়া লাশ দেখতে পেয়েছেন তারা। ভেতরে আটকেপড়াদের জীবন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা। এছাড়া ভবনের ছাদে উপর একটি ট্যাংকির ওপর দুটি হাত দিয়ে ইশারা করতে দেখা গেছে। স্থানীয়রা আরও জানান, কারখানাটিতে বয়লার বিস্ফোরিত হওয়ার পরই ভবনটির একাংশ ধসে পড়ায় অনেক শ্রমিক ভেঙে পড়া ভবনের নিচে চাপা পড়েন। এতে বের হতে না পেরে দগ্ধ হয়ে সেখানেই তাদের মৃত্যু হয়। পরে পুরো কারখানাটি ধসে পড়ে। কারখানাটির এক শ্রমিক বলেন, এই শিফটে ২০০ থেকে ৩০০ জনের মতো শ্রমিক কাজ করছিলেন। এছাড়া অনেকে রাতের ডিউটি শেষে বাসায় ফিরছিলেন। হঠাৎ বিকট শব্দ হলে ভবনটি কাঁপতে থাকে। ভূমিকম্প হচ্ছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করলেও পরে তারা ধোঁয়া দেখতে পান। বেশ কয়েকজন দ্রুত বের হতে সক্ষম হলেও বুঝতে না পেরে অনেকে আটকরা পড়েন। ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার দাবি করা হলেও সকালে সাড়ে ১১টায় আগুন জ্বলতে দেখা গেছে। এছাড়া আগুন ধসে পড়া ভবনটির পাশের একটি ভবনে ছড়িয়ে পড়েছে। এখনো দাউদাউ করে আগুন জ্বলছে।
 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: