নাঙ্গলকোটের সৌন্দয্যের প্রতিক ডাকাতিয়া নদী | Amader Nangalkot
শিরোনাম...
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ জমকালো আয়োজনে বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র ওমান শাখার কমিটি গঠন ◈ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কুমিল্লা দক্ষিণ জেলার কমিটিতে ভোলাকোটের দুই রতন ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

For Advertisement

নাঙ্গলকোটের সৌন্দয্যের প্রতিক ডাকাতিয়া নদী

26 April 2014, 3:58:26

Dakatia nodi

 

বাপ্পি মজুমদার ইউনুস।(আমাদের নাঙ্গলকোট ডট কম)

ডাকাতিয়া একটি বড় নদী। এটি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট ইউনিয়নের মধ্যে হয়ে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কনাকাপৈত ইউনিয়নের দিয়ে প্রবাহিত হয়ে ফেনী মহুরী নদীর সাথে মিশেছে। বন্যার পানি নিস্খকাশনে নদীর গুরুত্ব অপরীসিম। সুষ্ণ মৌসুমী নদীর তলায় প্রচুর পরিমানে ফসল উৎপাদন হয়। অত্র এলাকার মানুষের প্রায় ৫০ ভাগ মাছের চাহিদা এই নদী থেকে মিঠানো হয়। নদীর মধ্যে বাধ দিয়ে কৃষকরা পানির সেচের মাধ্যমে প্রচুর পরিমানে ফসল উৎপাদন করতে পারে।

একসময় ডাকাতিয়া নদীর উপর দিয়ে বরিশাল, ভোলা, শরিয়তপুর, ফরিদপুর, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, নরসিংদীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মালামাল পরিবহন করা হতো। নদীর বুকে পাল তোলা নৌকা চলাচল করত। নদী বন্দর চাঁদপুর থেকে মালামাল নিয়ে নৌকাগুলো বয়ে বেড়াতো হাজীগঞ্জ,শাহরাস্তি, মনোহরগঞ্জ, লাকসাম, নাঙ্গলকোট, চৌদ্দগ্রামসহ এ অঞ্চলের প্রত্যন্ত হাটবাজারগুলোতে। পাট বোঝাই নৌকাগুলো চৌমুহনীর ডেল্টা জুটমিল, হাজীগঞ্জের হামিদিয়া জুটমিলসহ বিভিন্ন পাটকলকে নিরন্তর প্রাণ জুগিয়েছে। আর্শিবাদ ছিল এ অঞ্চলের লক্ষ লক্ষ কৃষকের জীবনে। কিন্তু ডাকাতিয়া এখন মরা নদী। চাঁদপুর ২০০ মিটার চওড়া ডাকাতিয়া নদ এখন ৫০ মিটারের সরু খাল। আবার কোথাও কোথাও এর প্রস্থ ২০-৩০ মিটারে এসে ঠেকেছে। চাঁদপুর শহরের ১০ নম্বর ঘাট থেকে বাগাদী রোড পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার শুধু পাড়ই নয়, ডাকাতিয়ার বক্ষও দখল হয়ে গেছে এরই মধ্যে। গড়ে উঠেছে অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা।

দিন দিন হয়তো এই মহান নদীটি হারিয়ে ফেলবে তার সৌন্দয্যে।

For Advertisement

Unauthorized use of news, image, information, etc published by Amader Nangalkot is punishable by copyright law. Appropriate legal steps will be taken by the management against any person or body that infringes those laws.

Comments: