নাঙ্গলকোটে চাচার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ভাতিজি! অবশেষে গ্রেফতার | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

নাঙ্গলকোটে চাচার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ভাতিজি! অবশেষে গ্রেফতার

14 June 2020, 6:51:20

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে চাচার ধর্ষণে ভাতিজির অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় চাচা সোহেলকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন পরিষদের হেসিয়ারা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

রোববার সকালে সোহেল স্বেচ্ছায় নাঙ্গলকোট থানায় এসে ধরা দিলে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় তিনি নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই ভাতিজির মা ক্যান্সার আক্রান্ত হলে গত বছরের ১৪ নভেম্বর  কুমিল্লা মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। এতে তার মায়ের চিকিৎসা নিয়ে গত বছরের ১৫ থেকে ১৮ নভেম্বর কুমিল্লাতে ব্যস্ত থাকেন তার বাবা ও ভাই।

এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকায় চাচা সোহেল তাকে ধর্ষণ করেন। পরে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। বর্তমানে মেয়েটি ৮ মাসের গর্ভবতী।

এ ঘটনায় শনিবার ওই ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় মামলা করলে রাতেই মামালার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক আখতার হোসেন সঙ্গীয় ফৌর্সসহ আসামিকে গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। পরে ইউপি মেম্বারের সহযোগিতায় থানায় আত্মসমর্পণ করেন সোহেল।

নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, মেয়ের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাবা বাদী হয়ে মামলা করেন। আসামি সোহেল আত্মসমর্পণ করলে রোববার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। ভিকটিমকে পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসলে এ ঘটনার সঠিক কারণ জানা যাবে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x