নাঙ্গলকোটে জমে উঠেছে গরু-ছাগলের হাট | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ নাঙ্গলকোট সাংবাদিক সমিতির বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত ◈ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে গৃহীত তেরখাদায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ ◈ মানবতার ফেরিওয়ালা এমপি আব্দুস সালাম মুর্শেদী ◈ সুন্দরবন থেকে হরিণের মাংস,মাথা,ও পা উদ্ধার ◈ করোনার চাইতেও ভয়াবহ রূপ নিয়েছে ধর্ষণ ◈ মরচেপড়া মানুষ ____ মোঃ মাহমুদুল হাসান কিরণ ◈ ধর্ষণ মামলার মাস হতে চললেও এখনো গ্রেপ্তার হয়নি আসামি ◈ বাংলাদেশে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের ঘোষণা দিল গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। ◈ চৌদ্দগ্রামে নিজ বাড়ি ও এলাকায় জানাজা না দিয়ে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হাছে লতিফুর রহমানের মরদেহ ◈ দীর্ঘ সামাজিক বিরোধের ফসল নাঙ্গলকোটের রাবেয়ার লাশ!

নাঙ্গলকোটে জমে উঠেছে গরু-ছাগলের হাট

20 August 2018, 10:25:39

নাঈম উদ্দিন (প্রিন্স নয়ন) নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার নাঙ্গলকোট বাজারে ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে পশুর হাট। কোরবানির পশু অতিরিক্ত বাজারে আসাতে বাজার সম্পূর্ণ বরাট হয়ে নাঙ্গলকোট রেলওয়ে স্টেশনের রেল-লাইনের উপর কোরবানি পশু বিক্রি করলেন বেপারীরা। ঈদ নিকটে আসার কারনে যারা এখন ও কুরবানির পশু ক্রয় করেনি তারাও  ক্রয় করে নিচ্ছেন তাদের পছন্দের পশু।
বেপারিরা জীবনের মায়া না করে কোরবানির পশু বিক্রি করতে শেষ পর্যন্ত রেল-লাইনের উপর গিয়ে উঠলেন। সোমবার দুপুর ২টা থেকে সন্ধায় ৬ টা পর্যন্ত এই ঝুকি নিয়ে পশু বিক্রি করেন বেপারীরা। কার ও কারও নজর পশুর দিকে না দিয়ে ট্রেনের দিকে কখন যে ট্রেন আসে। ট্রেন আসলে সবাই আতংকিত হয়ে পড়েন। এই বছর যারা আগে কোরবানির জন্য পশু ক্রয় করছেন তারা এখন হিমসিম খাচ্ছেন কারণ বর্তমানে পশুর হাট খুবই ঠান্ডা। যারা বিক্রেতা তাদের কে অনেক টাকা লচ দিয়ে বিক্রি করতে হচ্ছে পশু। এইদিকে গরুর দাম কমলে ও ছাগলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিটি ছাগলে দাম বেড়েছে প্রায় ২-৩ হাজার টাকা। এতে বিক্রেতারা অনেক খুশি। এই বাজারে সবচেয়ে ছাগলের দাম দেখা গেছে ২৫ হাজার টাকা আর সর্বোচ্চ  গরুর দাম ১,৩৫, ০০০ টাকা। এই অল্প দামে অনেকে পশু বিক্রি না করে বাড়ি নিয়ে যান।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: