নাঙ্গলকোটে পেঁয়াজের দাম অধিক রাখায় অর্থদণ্ড ও বিভিন্ন ইউনিয়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত

25 November 2019, 7:18:12

 

বাপ্পি মজুমদার ইউনুস ।।

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহি অফিসার জনাব লামইয়া সাইফুল এবং নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মামুন-অর-রশিদ।
প্রতি কেজিপেঁয়াজ দুইশ টাকা দরে বিক্রি করার অভিযোগে নাঙ্গলকোট বাজারের এক ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা নগদ অর্থদন্ড আদায় করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। সোমবার দুপুরে পৌর সদর বাজারে এক অভিযানে দোকানী মোহাম্মদ শাকিলকে এ দন্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লামইয়া সাইফুল। এ সময় নাঙ্গলকোট থানার ওসি মামুন অর রশীদ উপস্থিত ছিলে।
ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, নাঙ্গলকোট পৌর সদর বাজারের ব্যবসায়ী বাচ্চু মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ শাকিল প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১২০/১৩০ টাকা দরে ক্রয় করে ১৯০/২০০ টাকা দরে বিক্রি করার অভিযোগ ছিল। নিয়মিত বাজার মনিটরিংয়ের অংশ হিসেবে সোমবার দুপুরে বাজারে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে এক নারী ক্রেতা তার কাছ থেকে এক কেজি পেঁয়াজের দাম ১৯৫ টাকা রাখার অভিযোগ করেন। পরে আদালত ওই দোকানীর দোকানে মূল্য তালিকা টানানো না থাকা ও অধিক মুনাফায় পেঁয়াজ বিক্রির অভিযোগের ভিত্তিতে ভোক্তা অধিকার আইনে নগদ ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করেন।
উপজেলা নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট লামইয়া সাইফুল দৈনিক আমাদের নাঙ্গলকোটকে জানান, নিয়মিত বাজার মনিটরিংয়ের অংশ হিসেবে প্রতিনিয়ত ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে। ওই দোকানীকে দোকানে মূল্য তালিকা টানিয়ে রাখায় ও অধিক মুনাফায় পেঁয়াজ বিক্রি করায় ভোক্তা অধিকার আইন মতে অর্থদন্ড করা হয়েছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: