নাঙ্গলকোটে ফার্স্ট ফুড ও রেস্টুরেন্ট ব্যাবসার নামে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

নাঙ্গলকোটে ফার্স্ট ফুড ও রেস্টুরেন্ট ব্যাবসার নামে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ!

17 April 2018, 10:25:40

বিশেষ প্রতিনিধি•
নাঙ্গলকোটে ফার্স্ট ফুডও রেস্টুরেন্ট ব্যবসার নামে চলছে অবৈধ ও অসামাজিক কার্যকালাপ। ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠা এসব ফার্স্ট ফুড ও রেস্টুরেন্টের অধিকাংশগুলোতেই চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। বিশেষ করে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা আড্ডায় দীর্ঘ সময় ব্যয় করছে এসব রেস্টুরেন্টে। ফার্স্ট ফুড ও রেস্টুরেন্ট নাম দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে এসব অবৈধ ব্যবসা। প্রশাসনের চোখের সামনে এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে নির্বিঘ্নে।অল্প পুঁজিতে অধিক লাভের আশা দিন দিন বাড়ছে কথিত ফার্স্ট ফুডও মিনি রেস্টুরেন্টের সংখ্যা।

সরেজমিনে ঘুরে ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা গেছে। নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডা বাজার,মাহিনী বাজার ও মৌকরা বাজারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি রেস্টুরেন্ট। এসব রেস্টুরেন্টে কোনো সুনির্দিষ্ট নিয়ম-নীতি মেনে চলার বাধ্যবাধকতা নেই।প্রতিটি রেস্টুরেন্টের ভিতরে ছোট ছোট রুমে পর্দা বা আলাদা ঘর করে তরুণ-তরুণীদের বসার জায়গা করে দেয়া হয়েছে। মূলত এ সব ছোট রুমগুলোতেই চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। রেস্টুরেন্টে খাওয়ার নাম করে উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়ে ও স্কুল-কলেজগামী ছাত্রছাত্রীরা ঘণ্টার পর ঘণ্টা এখানে এসে আড্ডায় মিলিত হচ্ছে।এসব রেস্টুরেন্টে গুলোর মধ্যে অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে বলে এলাকার অনেকেই অভিযোগ করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পথচারী ও ব্যবসায়ীরা জানান, স্থানীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তিবর্গের ছত্রছায়ায় এসব রেস্টুরেন্টগুলো গড়ে ওঠেছে। তাদের ভয়ে কেউ এর প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না। এ সব রেন্টুরেন্টগুলোর কারণে এলাকার কোমলমতী শিক্ষার্থীরা দিন দিন বিপথগামী হচ্ছে, যা নিয়ে এখানকার সচেতন অভিভাবকেরা গভীর উদ্বিগ্নে দিন কাটাচ্ছেন।

রেস্টুরেন্টে এর ছোট ছোট পর্দা করা কেবিন করে দেওয়ার কারনে টিনএজারেরা একান্তে যতটা সম্ভব একে অপরকে আপন করে নিতে পারছে খুব সহজে,ভোগ করছেন কয়েক ঘন্টার জন্য প্রাচ্যের সুখ। এসবের কারনে সমাজে বাড়ছে বিয়ে বিছচ্ছেদ সহ নানা বিশৃঙ্খলা।

যদি এসব রেস্টুরেন্টগুলোর বিরুদ্ধে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সম্ভাবনাময় জীবনের অবক্ষয় জাতিকে ধ্বংসের দিকে এগিয়ে নেবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: