নাঙ্গলকোটে মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে স্কুল-কলেজের ছাত্ররা! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ ◈ অনুকূল পরিবেশ হলে এইচএসসি পরীক্ষা
প্রচ্ছদ / নাঙ্গলকোট / বিস্তারিত

নাঙ্গলকোটে মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে স্কুল-কলেজের ছাত্ররা!

19 August 2014, 4:06:47

Yaba-bg-

 

 

 

 

 

 

 

ধ্বংসের মুখে ভবিষ্য প্রজন্ম…

মোঃ আলাউদ্দিন, নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) ঃ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ধুমপান, গাজা, ফেনসিডিল ও ইয়াবা সেবনসহ বিভিন্ন মাদকে আসক্ত হচ্ছে স্কুল পড়–য়া ছাত্ররা। ১২ থেকে ১৬ বছর বয়সী অনেক ছেলেদের দেখা যায় রাস্তার পাশে ধুমপান করছে। স্কুল বন্ধ থাকা সময়ে কোন কোন ছাত্র স্কুলের বা কলেজের বারান্দায় বসেই ধুমপান করে থাকে। স্কুল-কলেজে কাস করার জন্য অথবা প্রাইভেট পড়ার নাম করে বাড়ি থেকে বের হয়ে অনেক ছাত্র মাদক সেবনের আখড়ায় সময় কাটাচ্ছে।

স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক তিকর এসক মাদক সেবন করে মাদকাসক্ত ছাত্ররা বিষণœতাসহ বিভিন্ন জটিল রোগ ও সমস্যায় আক্রান্ত হচ্ছে। প্রথমে বন্ধু-বান্ধবের কারণে বা সঙ্গ দোষে অল্প অল্প ধুমপান শুরু করে। পরে নিয়মিত অভ্যাসে পরিণত হয়। তবে সন্তান কোথায় যাচ্ছে, কার সাথে সময় কাটাচ্ছে, কখন কি করছে, পড়ালেখা কেমন করছে এসব খোঁজখবর নেয়ার প্রয়োজন থাকলেও অনেক মা-বাবাই উদাসীনতার পরিচয় দিচ্ছে। কোন কোন মা-বাবা সন্তানের হাতে পড়ালেখার খরচের নামে তুলে দিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। কিন্তু তারা এ টাকা কোথায় ও কি কাজে ব্যয় করছে তার খবর রাখছে না।


কিছু স্কুল শিকরা কাসে মনযোগী হওয়ার চেয়ে প্রাইভেট পড়াতে বেশি পছন্দ করেন। তাই ছাত্ররা কেমন পড়ছে, কোন ছাত্রটি বিপথে চলে যাচ্ছে, কোন ছাত্র নিয়মিত কাসে উপস্থিত হচ্ছেনা এসব বিষয়ে তাদের যেন কোন মাথাব্যথা নেই। এমনকি কোন ছাত্রটি পড়ালেখা না করে স্কুল ফাঁকি দিচ্ছে, শিকদের নৈতিক দায়িত্ব হলেও তারা অভিভাবকদের ডেকে বিষয়টি অবহিত করছে না। দায়িত্বহীন শিক ও অসচেতন অভিভাবকদের কারণে একজন ছাত্র যখন পুরোপুরি মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে, তখন অনেক অভিভাবক সময় হারিয়ে বিষয়টি গুরুত্ব দিলেও আর ভালো পথে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়ে উঠে না। কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়নের প্রায় সবকটি স্কুল-কলেজের অধিকাংশ ছাত্র ক্রমাগত মাদক সেবনে উৎসাহিত হচ্ছে। এ মাদকাসক্তদের সংখ্যা দিন দিন আশংকাজনক হাকে বৃদ্ধি পাচ্ছে।


এলাকার সচেতন ব্যক্তিরা মনে করেন, ছাত্ররা মাদকাসক্ত হয়ে মহামারি আকার ধারণ করার আগেই সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এখনই সব শিক ও অভিভাবকদের আরো দায়িত্বশীল হওয়া উচিত। সন্তানদের পাশে বন্ধু হয়ে সহযোগিতার হাত বাড়াতে হবে। ধুমপানসহ অন্যান্য মাদক সেবনের অপরাধে আইন থাকলেও যথাযথ প্রয়োগ না থাকায় এসব অপরাধ অহরহ বৃদ্ধি পাচ্ছে। রহস্যজনক কারণে এলাকার মাদক অপরাধ দমন করতে না পারলেও স্কুল-কলেজে পড়–য়া ছাত্ররা যাতে মাদকাসক্ত হতে না পারে কর্তৃপরে সেদিকে নজর দেয়া উচিত। তা না হলে সমাজটা একদিক পুরোপুরি গোল্লায় যাবে। আর সে অভিশাপ থেকে সেদিন আমার কেউই রা পাবো না।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: