নাঙ্গলকোটে স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত

৪ মে ২০১৯, ২:১৫:৩৫

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার পদুয়ার পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে। শ্লীলতাহানির স্বীকার ওই ছাত্রী জানান, চলতি বছর পহেলা বৈশাখ সেই শাড়ী পড়ে স্কুলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। এই সময় দেখে শিক্ষক মিজানুর রহমান একজন নারি শিক্ষীকার সাথে অফিস রুমে অশ্লীল ভাবে জড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি দেখার পর থেকে লম্পট শিক্ষক স্কুল ছাত্রীকে বিভিন্ন ভাবে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে।এর পর কয়েক বার ছাত্রীকে টয়লেটের পাশের রুমে নিয়ে শ্লীলতাহানি করে।

সরেজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ছাত্রী আরো জানান, তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় হাত দেয়।বিষয়টি সহকারি শিক্ষক নাজমা স্যারকে জানালে সেই স্কুল ছাত্রীকে বলে ঘটনাটি কারো কাছে যেনো না বলে।

গত পহেলা মে বুধবার রাতে ছাত্রীটি তার পরিবারকে জানান। ২ মে বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার দাউদ হোসেন চৌধুরীর নজরে বিষয়টি আসলেই তখন তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেন। তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় লম্পট শিক্ষককে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়।

এই ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আল-আমীন জানান, গতকাল রোববার কুমিল্লা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো,আনোয়ার হোসেন সিদ্দিকীর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে অভিযুক্ত শিক্ষক মিজানুর রহমানকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়।

অভিযুক্ত মিজানুর রহমান পদুয়ার পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গত ৫ এপ্রিল ২০১৬ সালে যোগদান করেন। অভিযোগের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন, অভিভাবক সদস্য হাসানুজ্জামান মোল্লা রিপন,স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোস্তফা ভূঁইয়া।

অভিযুক্তের সাথে মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করে ও তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: