নাঙ্গলকোট দৌলখাঁড় পূর্ব পাড়া আপন ভায়েরা ভায়েরাকে খুন

13 March 2020, 3:20:03

অনিক আহমেদ মনির, স্টাফ রিপোর্টার

কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার দৌলখাঁড় পূর্ব পাড়া আপন ভায়েরা ভায়েরাকে খুন করেছে বলে দাবি নিহত পরিবারের।
দীর্ঘদিন যাবৎ দুজনের মধ্যে সম্পত্তি নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে। প্রায় সময় নিজেদের মধ্যে ভাগ যুদ্ধে লিপ্ত হয়। গত ৭-০২ -২০২০ তারিখে দুই ভায়েরার মধ্যে ঝগড়া তীব্র আকার ধারন করে, এতে করে মোঃ আমিনুল হক ফুল মিয়া কে মাথায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে যখম করে তার ভায়েরা ও ভায়েরার ছেলেরা সহ, তাৎক্ষণিকভাবে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেওয়া হয়। দীর্ঘ এক মাস মৃত্যু সাথে লড়াই করে,গত বুধবার রাত ১১ ঘটিকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

নিহতের বড় ছেলের দাবি বাড়ীর চাচাতো ভাই শিমুল ও তার খালু মোস্তফার ছেলেরা বাহির থেকে কিছু দুবৃর্ত্ত এনে এই হত্যা কান্ড ঘঠায়, নিহতর পরিবার আরো জানায় তারা প্রসাশনিক ভাবে টাকার জোর খাটিয়ে জেল থেকে ছাড় পেয়ে যায়।

এখন খুনিরা সবাই পলাতক আছে, পরিবার ও এলাকা বাসীর দাবি খুনিদের যেনো ফাঁসি হয়, এবং প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছে যে যেন খুনিদের সবাই কে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হয়।
নিহতর বড় ছেলে আরো জানায় যে,খুনিরা ভুয়া সাটিফিকেট বানিয়ে নিজেদের কে আড়াল করার পায়তারা করছে।

আজ শুক্রবার সকালে দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তার জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এর আগে গত ৭ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সকালে পারিবারিক ও মসজিদ কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে ভায়েরা ভাই মোস্তফা মজুমদারের নেতৃত্বে ১৪জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র দিয়ে আমিনুল হক মজুমদারের বাড়িতে হামলা করে। এসময় সন্ত্রাসীরা আমিনুল হকসহ ৫ জনকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহতদের মধ্যে আশঙ্কা জনক অবস্থায় আমিনুল হক মজুমদার ফুলমিয়াকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পরে তার অবস্থা আরো গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ১৪ জনকে আসামী করে নিহতের ছোট ভাই আব্দুল গোফরান নাঙ্গলকোট থানায় মামলা দায়ের করেন ।

এ ব্যাপারে নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা হওয়ার পর ৩ আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অপর আসামিরা জামিনে রয়েছে। যেহেতু ঘটনায় আহত একজনের মৃত্যু হয়েছে তাই ওই মামলাটি আদালতের মাধ্যামে হত্যা মামলা হিসেবে পরিবর্তিত হবে। মামলার তদন্ত চলমান রয়েছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: