নানা সমস্যায় নাঙ্গলকোটবাসী প্রত্যাশিত নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / নাঙ্গলকোট / বিস্তারিত

নানা সমস্যায় নাঙ্গলকোটবাসী প্রত্যাশিত নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত

9 July 2014, 3:02:51

মোঃ আলাউদ্দিন, নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) ঃ

কুমিল্লার অবহেলিত একটি জনপদের নাম নাঙ্গলকোট উপজেলা। চৌদ্দগ্রামের ৬টি এবং লাকসামের অবহেলিত ৫টি ইউনিয়ন নিয়ে ১৯৮৩ সালে নাঙ্গলকোট উপজেলাটি গঠিত হয়। বর্তমানে বিভিন্ন সমস্যায় নাঙ্গলকোট উপজেলাবাসী প্রত্যাশিত নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। ভবন সংকটে বিভিন্ন আবাসিক ভবনে চলছে প্রশাসনিক কার্যক্রম। বিগত সরকারগুলোর সময়ে নাঙ্গলকোটের প্রধান-প্রধান কয়েকটি সড়ক পাকাকরণ, হাসপাতাল, স্কুল-কলেজের ভবন, পৌর ভবন ও অডিটরিয়াম নির্মাণ, বিভিন্ন  গ্রামের বিদ্যুতায়নসহ উল্লেখযোগ্য কিছু উন্নয়ন হয়েছিল। তবে বর্তমান সময়ে এলাকাবাসী তাদের কাঙ্খিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। ফলে উপজেলাবাসীর মাঝে বিরাজ করছে চরম হতাশা। নাঙ্গলকোট উপজেলার অধিকাংশ সড়ক ভেঙ্গে গিয়ে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। ব্রিজ-কালভার্টগুলোর অবস্থাও নড়েবড়ে। উপজেলার সাথে জেলা সদরের যোগাযোগের প্রধান সড়ক নাঙ্গলকোট-লাকসাম সড়কটি সুরু হওয়ায় উপজেলাবাসীকে আধা ঘন্টার পথ চলতে দেড় ঘন্টা লাগে। উপজেলার ৫০শয্যা হাসপাতালটি উদ্বোধন করা হলেও প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র ও যন্ত্রপাতির অভাবে চালু করা সম্ভব হচ্ছে না।


গোহারুয়ায় নির্মিত ২০ শয্যা হাসপাতালটি ডাক্তার, প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাবে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাব এবং ব্যবহার না করার ফলে পরিত্যক্ত অবস্থায় হয়ে পড়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে রয়েছে ডাক্তার সংকট। উপজেলা প্রশাসনে নেই পর্যাপ্ত কর্মকর্তা কর্মচারী। জানা যায়, উপজেলা প্রশাসনের ৯টি বিভাগের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রায় ৯৩টি কর্মচারীর পদ শূন্য রয়েছে। এক যুগ ধরে নেই সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা। উপজেলার অধিকাংশ গ্রামে এখনো বিদ্যুৎ পৌঁছেনি। সরকারিকরণ করা হয়নি একটি মাধ্যমিক স্কুল-কলেজ বা কোনো মাদ্রাসা। নাঙ্গলকোট রেল ষ্টেশনে দু-একটি আন্তঃনগর ট্রেন স্টপিজ থাকলেও অধিকাংশ ট্রেন এখানে থামেনা। ফলে উপজেলাবাসীকে যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়। বর্তমানে এখানে টিআর, কাবিখা এবং কাবিটা বিতরণের মধ্যে উপজেলার উন্নয়ন কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রয়েছে।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: