নোয়াখালিতে দাফনের দেড় মাস পর গৃহ বধূর লাশ উত্তোলন | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

নোয়াখালিতে দাফনের দেড় মাস পর গৃহ বধূর লাশ উত্তোলন

13 July 2017, 5:26:01

অাবদুল মোতালেবঃ  নোয়াখালী

নোয়াখালীর  সুবর্ণচরে দাফনের ৪৩দিন পর মনোয়ারা বেগম মনি (৩০) নামের এক গৃহবধুর লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্টেট শাহরিন ফেরদৌসি এর উপস্থিতিতে লাশ তোলা হয়।

জানাযায়, মনোয়ারা বেগম মনি উপজেলার চরআমান উল্যাহ ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল শহিদ এর মেয়ে। মনি তিন সন্তানের জননী। বিগত ১৫ বছর আগে একই গ্রামের আবুল খায়ের বলির ছেলে মোহাম্মদ আলী সবুজ (৩২)এর সাথে বিবাহ হয়। অভিযোগ রয়েছে বিয়ের পর থেকে তার শশুর বাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবীতে বিভিন্ন সময় মনিকে নির্যাতন করে আসেছে। এ নিয়ে সামাজিক বিভিন্ন সময় গ্রাম্যশালিশ করা হয়েছে।

এদিকে মনোয়ারা বেগম মনির বড় ভাই ও মামলার বাদী ,আবুল কালাম জাহাঙ্গীর জানান, বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য আমার বোন বিভিন্ন সময় তার শশুর,শাশুড়ী,ও স্বামী দ্বারা র্নিযাতনের শিকার। তাদেও দাবী বারবার পুরণ করলেও তারা আমার বোনকে বাঁচতে দেয়নি। অবশেষে গত ৫ মে আমার বোনকে তার শশুর আবুল খায়ের বলি টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে সে রাজি না হওয়ায় র্নিযাতন করলে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। আমাদেরকে না জানিয়ে তারার আমার বোনকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। তিন দিন পর তারা জানায় আপনার বোন আতœহত্যা করেছে। অভিযোগ থাকা সত্তেও ময়না তদন্ত ছাড়া তারা রাতের বেলায় গোপনে লাশ দাপন করে। তবে যারা লাশের গোসল দিয়েছে তারা লাশের গায়ে আঘাত এর চিহ্ন আছে বলে নিশ্চিত করায় আমি বাদী হয়ে ,নোয়াখালী নারী ও শিশু আদালতে অপমৃত্যুও মামলা দাযের করি। যার প্রেক্ষিতে আদালত লাশের ময়না তদন্তের নির্দেশ দেন।

এঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক আমিরুল ইসলাম (পি ভি আই ) বলেন, আদালতের নির্দেশ মোতাবেক মামলার সঠিক তদন্তের সার্থে নির্বাহী ম্যাজিস্টেট এর উপস্থিতিতে লাশটি কবর থেকে উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: