বটিয়াঘাটায় জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে জমি দখলের চেষ্টা ১১ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

বটিয়াঘাটায় জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে জমি দখলের চেষ্টা ১১ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের

7 January 2019, 7:47:22

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
খুলনার বটিয়াঘাটায় জমির প্রকৃত মালিক না হয়েও ভুয়া দলিল বানিয়ে জমি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে শিপইয়ার্ড ইসলাম পাড়া এলাকার মুন্সী রুস্তম আলীর পুত্র মোঃ সামসুর রহমান(৬৫) এর নামে। এ বিষয়ে ১১ জনকে আসামী করে লবণচরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী তেরোখাদা এলাকার মোঃ আবুল বাশারের পুত্র মোঃ আবু শাহাদাত বাবুল(৩৫)। আসামীরা হলেন- মোঃ সামসুর রহমান(৬৫), মোঃ আবুল খন্দকার(৪৫), মোঃ লুৎফর রহমান(৪৪), মোঃ রকিবুল ইসলাম(৪২), মোঃ শহিদুল ইমলাম(৩৫), মোঃ এছাহাক শেখ(৫৫), লাভলী বেগম(৫০), খোরশেদ আলম(৫২), মিসেস দিলরুবা খানম(৪৬), শামীমা আক্তার সীমা(৩৮), খান মোঃ জামির হোসেন(৫১)।
মামলার বিবরনি থেকে জানা যায়- খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা থানার সাবেক ৮১ হাল ১২ মাথাভাঙ্গা মৌজাস্থ ৪৫৮ নং খতিয়ানের আর,এস ২৬৮৭, ২৬১৮, ২৫৫১, ২৫৪৮, ২৫৪৬, ২৬১ নং দাগের সর্বমোট ১০ একর ৪১ শতক জমির মধ্যে মৃত সুরেশ চন্দ্র দাশ ৬.৪০ একর জমির প্রকৃত মালিক। তিনি ১৯৯৬ সালের ২৯ মে ৪ পুত্র সন্তান, ৪ কন্যা সন্তান ও স্ত্রী কে উত্তরাধীকারে রেখে ইন্তেকাল করেন। হিন্দু সম্পত্তির দায়ভাগ আইন অনুসারে উক্ত জমির মালিক মৃত সুরেশ চন্দ্র দাশের ৪ পুত্র সন্তানরা মোঃ আবু শাহাদাৎ বাবুলের নামে দলিল করে দেন। যার দলির নং- ৩২১৯/১৭, তাং- ২৩/০৫/১৭ এবং দলিল নং- ৫৬৫৩/১৭, তাং- ২৩/০৮/১৭ ইং। পরবর্তিতে গত ০৩/০৮/১৮ ইং তারিখে মাথাবাঙ্গা জোড়াতালগাছের পাশের জমিতে ভূমি উন্নয়নের কাজে গেলে উক্ত আসামীরা তাকে বাধা দেয় এবং শারীরিক ভাবে আঘাত করার চেষ্টা করে। সে সময় বাধা দেওয়ার কারন জানতে চাইলে তারা বলেন আসামী সামসুর রহমান বটিয়াঘাট সাবরেজিস্ট্রার অফিস থেকে মোঃ আবু খন্দকারের নামে ২৪৮৪/০৫ নং কবলা দলিল, মোঃ লুৎফর রহমানের নামে ২৪৬৩/০৫ নং কবলা দলিল, মোঃ ইসহাক শেখর নামে ২২৯৪/০৪ নং কাবলা দলিল, লাভলী বেগমের নামে ৪০২৪/০৩ নং কাবলা দলিল, মিসেস দিলরুবা খানের নামে ৩৫১৬/০৫ নং কবলা দলিল ও শামীমা আক্তার সীমার নামে ২৪৮৩/০৫ নং কবলা দলিল করে দিয়েছেন।
এ মামলার প্রধান আসামী সামসুর রহমান উক্ত ৬.৪০ একর জমির বৈধ মালিক না হওয়া সত্ত্বেও প্রতারনার মাধ্যমে জাল দলিল বানিয়ে অন্য আসামীদের নামে সাব কবলা দলিল করে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী আবু শাহাদাত বাবলু। এছাড়াও আসামী সামসুর রহমানের নামে যোদ্ধাপরাধী মামলা সহ একাধিক জাল-জালিয়াতি মামলার অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে লবনচোরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন- এ মামলার প্রধান আসামী সামসুর রহমানকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x