শিরোনাম
◈ ক্ষমতার পতন ও অপেক্ষার মিষ্টি ফল-মহসীন ভূঁইয়া ◈ নাঙ্গলকোটে দুই গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তাকে খাল বানিয়ে নিরুদ্দেশ ঠিকাদার! ◈ নাঙ্গলকোটের তিনটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের টিম ◈ নাঙ্গলকোটে শত বছরের পানি চলাচলের ড্রেন বন্ধ ,বাড়িঘর ভেঙ্গে ২’শ গাছ নষ্টের আশংকা ◈ পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে খরচ বাড়লো ৪ হাজার কোটি টাকা ◈ অরুণাচল সীমান্তে বিশাল স্বর্ণখনির সন্ধান! চীন-ভারত সংঘাতের আশঙ্কা ◈ কুমিল্লার বিশ্বরোডে হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ইউলুপ- লোটাস কামাল ◈ দুই মামলায়খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আজ ◈ মাদকবিরোধী অভিযানএক রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ ◈ নাঙ্গলকোটে চলবে ৩ দিন ব্যাপী মাটি পরীক্ষা
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

‘বল টেম্পারিংয়ে যা সবার চোখ এড়িয়ে গেছে…’

১ এপ্রিল ২০১৮, ১:৪৯:৪৯

আথুলা সামারাসেকেরাকে মনে আছে? এই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার নব্বইয়ের দশকে মাতিয়েছিলেন বাংলাদেশের ক্লাব ক্রিকেট। আবাহনী-মোহামেডান—দুই বড় ক্লাবে খেলেই পেয়েছিলেন জনপ্রিয়তা। ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার হয়ে খেলা এই মারকুটে ব্যাটসম্যানের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার অবশ্য খুব সমৃদ্ধ নয়। মাত্র ৪ টেস্ট ও ৩৯ ওয়ানডে খেলেই শেষ হয়ে গিয়েছিল প্রতিভাবান এই ক্রিকেটারের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী সাবেক এই ক্রিকেটার সম্প্রতি বল টেম্পারিং ইস্যুতে নিজের ফেসবুকে দারুণ একটা পোস্ট দিয়েছেন। ‘যে দিকটা সবার চোখ এড়িয়ে গেছে’ শিরোনামে লেখা সেই ফেসবুক পোস্টে সামারাসেকেরার দাবি, অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট দল বল টেম্পারিংয়ের পরিকল্পনাটা কেপটাউন টেস্টের তৃতীয় দিন মধ্যাহ্ন বিরতিতে এঁটেছে—এটা তিনি বিশ্বাস করেন না। তিনি মনে করেন, পরিকল্পনাটা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগেই, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে।

পুরো ব্যাপারটাই তাঁর অনুমাননির্ভর, ‘আমার ধারণা এটা টেস্টের মধ্যাহ্ন বিরতিতে অথবা কোনো টেস্টে আগের দিন টিম মিটিংয়ে এই পরিকল্পনাটা হয়নি। এই পরিকল্পনাটা হয়েছে অস্ট্রেলীয় দলের দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে রওনা হওয়ার আগেই।’

এমন অনুমান কেন করছেন, সেটাও বলেছেন সামারাসেকেরা, ‘অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটাররা এতটা বোকা নয় যে তারা দক্ষিণ আফ্রিকার কোনো হার্ডওয়্যারের দোকানে গিয়ে সিরিশ কাগজ কিনবে। পাশাপাশি সিরিশ কাগজ যে একজন ক্রিকেটারের কিট ব্যাগে প্রয়োজনীয় সামগ্রীর একটি, সেটা আমার জানা নেই।’

সিরিশ কাগজ যেকোনো ক্রিকেটারের কিট ব্যাগে থাকতে পারে না—সেটা সামারাসেকেরা ব্যাখ্যা করেই বুঝিয়ে দিয়েছেন নিজের ফেসবুক পোস্টে, ‘পেশাদার ক্রিকেটারদের নিজেদের ব্যাট পরিষ্কার রাখার জন্য সিরিশ কাগজের প্রয়োজন হয় না। কারণ, প্রত্যেক খেলোয়াড়ের ব্যাটেই বড় বড় প্রতিষ্ঠানের স্পনসর থাকে। এবং প্রত্যেকেরই কিট ব্যাগে ১০-১২ খানা ব্যাট একদম উপযোগী অবস্থায় প্রস্তুত থাকে। এখন যদি সিরিশ কাগজ কিট ব্যাগের জিনিসপত্রের অংশ না হয়ে থাকে, যদি সেই সিরিশ কাগজ কেউ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে না কিনে থাকে, তাহলে সেগুলো কেনা হয়েছে নিশ্চয়ই অস্ট্রেলিয়া থেকেই। এ থেকেই বোঝা যায়, তারা পরিকল্পনাটা কতভাবে করেছে। সম্মান হারিয়ে ম্যাচ জয়ে কী লাভ, সেটা আমি বুঝতে পারি না।’

ক্রিকেট দুনিয়ায় খুব বিখ্যাত কেউ নন সামারাসেকেরা। ক্রিকেট ছাড়ার পর বেছে নিয়েছেন নিভৃত জীবনই। কিন্তু বল টেম্পারিং নিয়ে তাঁর এই ফেসবুক পোস্ট ক্রিকেটপ্রেমীদের ভাবনার নতুন দিক খুলে দেবে—এটা বলাই যায়।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: