সর্বশেষ সংবাদ
◈ মারছে মানুষে মানুষ!- মোঃ: জহিরুল ইসলাম ◈ নাঙ্গলকোট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদকের নামে ভূয়া আইডি খুলে প্রতারনার ফাঁদ ◈ “কাজী জোড়পুকুরিয়া সমাজকল্যাণ পরিষদ” কমিটি গঠন ◈ ছাত্রদলের সভাপতি পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে বাগেরহাটের ছেলে হাফিজুর রহমান ◈ চৌদ্দগ্রাম থানার ওসির নির্দেশে কবরে রেখে যাওয়া বৃদ্ধ মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করলো পুলিশ ◈ নাঙ্গলকোটে ইভটিজিংয়ে প্রতিবাদ করায় সন্ত্রাসী হামলা প্রতিবাদে মানববন্ধন ◈ আজ টাইগারদের দায়িত্ব বুঝে নেবেন ডোমিঙ্গো ◈ জাতীয় দিবসগুলো শিক্ষকদের ছুটি হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে কেন? ◈ কুমিল্লা মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় বাড়ছে লাশের সারি; নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮ জনে; পরিচয় মিলেছে সবার ! ◈ কুমিল্লার লালমাই উপজেলায় বাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে ৭ যাত্রী নিহত

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও লক্ষ্যব্যাপ্তি —ফায়াজ শাহেদ

১৭ জুলাই ২০১৯, ১০:৪৫:৪৪

সুদীর্ঘ বারোটি বছর পড়াশুনার সমাপ্তি ঘটিয়ে আরেকটি পৃথিবীর সাথে পরিচয় ঘটে আমাদের, যার নাম ‘বিশ্ববিদ্যালয়’। বিশ্ববিদ্যালয় এমন একটি জ্ঞানগৃহের নাম, যেখানে উচ্চশিক্ষার পাশাপাশি মানবিক মূল্যবোধ দেশপ্রেম সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের অনুসন্ধ্যান সহ বিশ্বায়ণ নিয়ে চিন্তা করতে শেখায়। এখানে এসে শিক্ষার্থীরা নিজেকে গড়ার পাশাপাশি জাতিকে উন্নতির স্বর্ণশিকড়ে পৌঁছানোর স্বপ্ন দেখে যা বিশ্বের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ছাত্রছাত্রীদের সচারাচর বৈশিষ্ট্য। কিন্তু, বর্তমানে আমাদের দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শ্রেণির সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই ভিন্নধর্মী একটি লক্ষ্যকে সামনে রেখে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছে, তা হলো ‘বিসিএস ক্যাডার’।

আজকাল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পাঠকক্ষ, গ্রন্থাগার এমনকি খোলা মাঠও ব্যস্ত হয়ে উঠেছে বিসিএস এর পড়াশুনাতে। এতে করে একমুখি শিক্ষা চর্চার ফলে গবেষণা ও বিশ্বায়ণমুখি চিন্তার অবনতি ঘটছে।

বিসিএস ক্যাডার হওয়ার লক্ষ্যকে খাটো কিংবা অসম্মান করা আমার এ লেখার উদ্দেশ্যে নয়। আমার এ লেখার উদ্দেশ্য হলো বিসিএসকে জীবন লক্ষ্যের একমুখি খোরাক না বানিয়ে শিক্ষার্থীদের নতুন করে ভাবতে শেখা এবং লক্ষ্যব্যাপ্তিকে আরো সুদুরপ্রসারি করে তোলা।

বিশ্ববিদ্যালয়কে ইংরেজিতে University বলা হয়। University শব্দটিতে Universe শব্দটি আমাদেরকে হাতছানি দেয়। Universe শব্দের অর্থ ‘বিশ্ব’।
একে বাংলায় আমরা ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ বলে থাকি। সেখানেও ‘বিশ্ব’ শব্দটি বিদ্যমান।
এর মানে হলো, Universe তথা বিশ্ব আমাদেরকে তাকে নিয়ে ভাবার কথা জানিয়ে দিচ্ছে। শব্দগাঁথুনি আমাদেরকে ইঙ্গিতের সাহায্যে জানিয়ে দিচ্ছে আমাদের লক্ষ্যব্যাপ্তি সর্ম্পকে।

বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা কেবল বিসিএসমুখি লক্ষ্য বিনির্মাণে গবেষণা, বিশ্বায়ণ এবং স্বদেশকে বহির্বিশ্বের কাছে উড্ডীন করে তুলে ধরার মানসিকতা থেকে লক্ষচ্যুত হচ্ছে বলে আমি মনে করি। কেননা, বিসিএস এটি শুধু দেশের ভিতরে সীমাবদ্ধ একটি চিন্তার নাম। আর কজনই বা বিসিএস ক্যাডার হতে পারেন। বরঞ্চ অনেকেই বিসিএসে উত্তীর্ণ হতে না পেরে হতাশার বশবর্তী হয়ে আত্মহত্যার মত জঘণ্য পথও বেছে নিচ্ছেন। আবার অনেকেই জীবনটাকে বিসিএসকেন্দ্রীক করার ফলে দেখা যায়, পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পেরে নিজের সম্ভাবনাময় জীবণটাকে ব্যর্থ বলে মনে করেন। আপনি যদি বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে একজন শিক্ষক কিম্বা একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা হোন এতে আপনার দেশের নির্দিষ্ট একটি মহলের সেবা করতে সুযোগ হবে মাত্র।

অন্যদিকে, আপনি যদি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে বিশ্ব গড়ার লক্ষ্য স্থির করে বিশ্বখ্যাত অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনুস ও ভৌতবিজ্ঞানী জামাল নজরুল ইসলামের মত সফল মানুষ হতে পারেন, এতে আপনার দেশ ও স্বজাতিসহ বিশ্বকে কিছু দিয়ে যাওয়া মানুষগুলোর সাথে আপনাকেও স্মরণ করা হবে।

একমুখি লক্ষ্যবিনির্মাণে সাহিত্য গবেষণাও লোপ পাচ্ছে। বিভিন্ন স্থরের গবেষণাখাতগুলো শূন্যের কোটায় উপনীত হচ্ছে। এবং সরকারী-বেসরকারী অন্যান্য কর্মস্থলগুলোকে খাটো করে দেখার নতুন এক মানসিকতা তৈরি হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের ভাবনায় নতুন আরেকটি অবাঞ্চনীয় মাত্রা যোগ হয়েছে যে, বিসিএস ছাড়া নিজেকে অন্যকোন পদ্ধতিতে বিকশিত করবার উত্তম কোন পন্থা নেই। যেটি নিছক ভুল ধারণা ছাড়া কিছু নয়।

সুতরাং, একমুখি লক্ষব্যাপ্তি পরিহার করে নিজের মধ্যে বিশ্বমানের সুদুরপ্রসারি চিন্তা সঞ্চারিত করলে দেশ ও জাতির উন্নতি অনিবার্য।
————-
শিক্ষা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: