ভাঙল প্রাণের বই মেলা মোট বিক্রি ৮২ কোটি টাকা, বই ৪ হাজার ৯১৯টি

1 March 2020, 9:13:56

আজ থেকে আর প্রাণের উচ্ছ্বাস বইবে না সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে। প্রিয় লেখকের পছন্দের বই কেনার জন্য স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে বেড়াবেন না বইপ্রেমীরা। আর বিক্রেতারাও ক্রেতাদের আশায় বইয়ের পসরা সাজিয়ে অপেক্ষা করবেন না। আজ থেকে দীর্ঘ এক বছরের অপেক্ষার পালা।

পাঠক, লেখকসহ বইপ্রেমীদের মধ্যে বিরহের সুর বাজিয়ে শেষ হলো মাসব্যাপী ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২০’। বিকিকিনি ও প্রকাশনার দিকে বিগত বছরগুলোর সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে এবারের গ্রন্থমেলা। ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রকাশক ও বাংলা একাডেমির বিক্রি মিলিয়ে এবার ৮২ কোটি টাকার বই বিক্রি হয়েছে।

গতবার বিক্রির পরিমাণ ছিল ৮০ কোটি টাকা। এবার গতবারের চেয়ে ২ কোটি টাকা বেশি বিক্রি হয়েছে। এ ছাড়া প্রকাশনার দিক থেকেও গতবারের চেয়ে এগিয়ে আছে এবারের মেলা। এ বছর প্রকাশ হয়েছে ৪ হাজার ৯১৯টি নতুন বই। গতবার প্রকাশিত হয়েছিল ৪ হাজার ৬৮৫টি বই। অর্থাৎ গতবারের তুলনায় এবার ২৩৪টি বেশি নতুন বই প্রকাশ পায়। প্রকাশনা ও বিক্রিতে এগিয়ে থাকলেও মানসম্পন্ন বইয়ের প্রকাশনায় এবারের মেলা পিছিয়ে রয়েছে। গতবারের মেলায় ১ হাজার ১৫১টি মানসম্পন্ন বই প্রকাশিত হয়। আর এবার সেই সংখ্যা ৭৫১টিতে নেমে এসেছে। অর্থাৎ গতবারের তুলনায় মানসম্পন্ন বইয়ের সংখ্যা কমেছে ৪০০টি
বাংলা একাডেমি সূত্র জানায়, এদিকে গত কয়েক বছরের হিসাব অনুযায়ী এ বছরের মেলা সফলতার সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। ২০১৮ সালের বিক্রি ছিল ৭০ কোটি ৫০ লাখ টাকা, ২০১৭ সালের বিক্রি ছিল ৬৫ কোটি ৪০ লাখ টাকা, ২০১৬ সালে ৪০ কোটি ৫০ লাখ ও ২০১৫ সালে ২১ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। অর্থাৎ দিনে দিনে মেলা শুধু সফলতার দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে। বিগত বছরগুলোর সব রেকর্ড ভঙ্গ করায় প্রকাশকরা ভবিষ্যতেও মেলা নিয়ে নতুন করে আশাবাদী।
মেলায় মোট বই ৪ হাজার ৯১৯টি : এ বছরের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ৪ হাজার ৯১৯টি নতুন বই এসেছে। আর গতবার নতুন বই প্রকাশিত হয়েছিল ৪ হাজার ৬৮৫টি। অর্থাৎ গতবারের তুলনায় এবার ২৩৪টি বই বেশি প্রকাশিত হয়। আর বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্যানুযায়ী বরাবরের মতো এবারও সর্বোচ্চ প্রকাশনা ছিল কবিতার। এ বছর কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে ১ হাজার ৫৮৫টি। অর্থাৎ মোট বইয়ের এক-চতুর্থাংশ কবিতার বই। তবে বিক্রিতে বরাবরের মতো এবারও পিছিয়ে ছিল কবিতার বই। এ বছর গল্পের বই প্রকাশ হয় ৬৪৪টি, উপন্যাস ৭৩১টি, প্রবন্ধ ২৭১টি, গবেষণা ১১২, ছড়া ১১১, শিশুতোষ ২০৩, জীবনী ১৪৯, রচনাবলি ৮, মুক্তিযুদ্ধ ১৫২, নাটক ৩৪, বিজ্ঞান ৮৩, ভ্রমণ ৮২, ইতিহাস ৯৬, রাজনীতি ১৩, স্বাস্থ্য ৩৬, রম্য ৪০, ধর্মীয় ২০, অনুবাদ ৫৭, অভিধান ১৪, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি ৬৭, বঙ্গবন্ধু বিষয়ক ১৪৪ এবং বিবিধ বিষয়ে বই এসেছে ২৬৮টি।

সমাপনী অনুষ্ঠান : সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

এতে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। গ্রন্থমেলার প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২০’-এর সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ডক্টর ইমেরিটাস আনিসুজ্জামান।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: