মজলুমের সম্পত্তি দখলে বাধা দেয়ায় মারধর, বাসাবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

পেরিয়া ইউনিয়নের কাজি জোড়পুকুরিয়া গ্রামে মরহুম মাওলানা তমিজউদ্দীন পরিবারের উপর

মজলুমের সম্পত্তি দখলে বাধা দেয়ায় মারধর, বাসাবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর!

23 June 2020, 12:14:59

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের কাজি জোড়পুকুরিয়া গ্রামে মরহুম মাওলানা তমিজউদ্দীন এর সন্তান মাওলানা আবু সালেহ এবং মাওলানা শামসুদ্দিনকে মারধর ও তাদেমজলুমের সম্পত্তি দখলে বাধা দেয়ায় মারধর, বাসাবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর!!
নিজস্ব প্রতিবেদক: কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের কাজি জোড়পুকুরিয়া গ্রামে মরহুম মাওলানা তমিজউদ্দীন এর সন্তান মাওলানা আবু সালেহ এবং মাওলানা শামসুদ্দিনকে মারধর ও তাদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা করা হয়েছে।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মাওলানা শামসুদ্দিন এর জমি জোর পূর্বক দখলের পাঁয়তারা করে গাছগাছালি লাগান একই গ্রামের দ্বীন মোহাম্মদের পুত্র ওবায়েদুল হক ও রবিউল হক মিলন গং।

গত ২০/০৬/২০ ইং রোজ শনিবার জমির মালিক শামসুদ্দিন জমিতে গিয়ে বাধা দেয়ায় ওবায়েদ গং তাকে ও তার বড়ভাই মাওঃ আবু সালেহকে মরধর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়। হামলায় মাওলানা আবু সালেহর প্রতিবন্ধী পুত্রও আহত হয়! তারা নিরিহ ও মজলুম হওয়াতে কোনো প্রতিরোধ করতে না পেরে বাড়িতে চলে যায়। পরবর্তিতে ওবায়েদের ছোট ভাই রবিউল হক মিলন বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে পুনরায় শামসুদ্দিনের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করে। শামসুদ্দিনের পরিবার হামলার স্বীকার ও আহত হয়ে প্রান ভয়ে পালিয়ে জীবন রক্ষা করে।

এবিষয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, মরহুম মাওলানা তমিজ উদ্দিনের ছোট ছেলে মাওলানা শামসুদ্দিন অভিযুক্তদের বাড়ির পাশে এনজিও SDFএর কাছে চার শতক জমিন বিক্রি করেন। ঐ দাগে মোট জমি ৯ শতক। তার মধ্যে থেকে শামসুদ্দিন SDF এর কাছে বিক্রি করে ৪ শতক । বিক্রিত জমি অভিযুক্তদের বাড়ির পাশে হওয়ায় SDF থেকে ক্ষমতার প্রভাব দেখাইয়া জোরপূর্বক অন্যপ্রান্তে এওয়াজ বদলা কবলা দিতে বাধ্য করেন ওবায়দুল হক ও মিলন গং। জমি এওয়াজ বদলা করা হয়েছে চার শতক কিন্তু ওবায়দুল হক / মিলন গংরা জোর পূর্বক বাকি জমি দখল করার পাঁয়তারা করে বিভিন্ন রকম গাছগাছালী লাগায়। জায়গার মূল মালিক বাধা দিতে গেলে তাকে মারধর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়। শুধু তাড়িয়ে দিয়ে ক্ষান্ত হয় নাই তারা। ওবায়দুল হক এর ছোট ভাই জামাত শিবির থেকে সদ্য আওয়ামীলীগে যোগদান কারী রবিউল হক মিলন ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে এসে মাওলানা তমিজউদ্দীন এর বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। ভাংচুরের আওয়াজ শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে মামলার ধমক দিয়ে বলে বেশি কথা বললে ঘরে শুইতে দিবো না বলে হুমকি দেয়!

উল্লেখ্য, শিবিরকর্মী রবিউল হক মিলন মতিঝিল নাশকতা মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলার আসামী। ইতিপূর্বে একাধিকবার জেল খেটেছেন। এখন ছাত্রলীগে যোগ দিয়ে ঐসব মামলা থেকে রেহাই পাওয়ার চেষ্টা করতেছেন।
এ ঘটনা পরবর্তি অত্র ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ নুরুল ইসলাম আলমগীর এ বিষয় নিয়ে বিচার করবেন বলে তিনি ভিকটিমদের আস্থস্ত করেন। পরে অত্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও এলাকার বিশিষ্ট সমাজপতি জনাব এম এ হামিদ সাহেবকে বিষয়টি জানানো হলে অত্র ওয়ার্ডের মেম্বার সহ অনাকাংখিত ঘটনাটি নিরসনের লক্ষ্যে ২৩/৬/২০২০ মঙ্গলবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় সালিশের তারিখ ধায্য করা হলেও ওবায়েদ গং সময় চাওয়ায় শালিস অনুষ্ঠিত হয়নি। এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান এম এ হামিদ আগামী শুক্রবার সম্ভাব্য শালিসের তারিখ প্রদান করেন।।
এলাকাবাসী ও সচেতন মহল শালিস/ বিচার পিছিয়ে দেয়ায় হতাশা ব্যাক্ত করেন এবং দেরীতে হলেও সুষ্ঠ বিচার প্রত্যাশা করেন।।র বাড়িতে অতর্কিত হামলা করা হয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মাওলানা শামসুদ্দিন এর জমি জোর পূর্বক দখলের পাঁয়তারা করে গাছগাছালি লাগান একই গ্রামের দ্বীন মোহাম্মদের পুত্র ওবায়েদুল হক ও রবিউল হক মিলন গং।
গত ২০/০৬/২০ ইং রোজ শনিবার জমির মালিক শামসুদ্দিন জমিতে গিয়ে বাধা দেয়ায় ওবায়েদ গং তাকে ও তার বড়ভাই মাওঃ আবু সালেহকে মরধর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়। হামলায় মাওলানা আবু সালেহর প্রতিবন্ধী পুত্রও আহত হয়! তারা নিরিহ ও মজলুম হওয়াতে কোনো প্রতিরোধ করতে না পেরে বাড়িতে চলে যায়। পরবর্তিতে ওবায়েদের ছোট ভাই রবিউল হক মিলন বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে পুনরায় শামসুদ্দিনের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করে। শামসুদ্দিনের পরিবার হামলার স্বীকার ও আহত হয়ে প্রান ভয়ে পালিয়ে জীবন রক্ষা করে।

এবিষয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, মরহুম মাওলানা তমিজ উদ্দিনের ছোট ছেলে মাওলানা শামসুদ্দিন অভিযুক্তদের বাড়ির পাশে এনজিও SDFএর কাছে চার শতক জমিন বিক্রি করেন। ঐ দাগে মোট জমি ৯ শতক। তার মধ্যে থেকে শামসুদ্দিন SDF এর কাছে বিক্রি করে ৪ শতক । বিক্রিত জমি অভিযুক্তদের বাড়ির পাশে হওয়ায় SDF থেকে ক্ষমতার প্রভাব দেখাইয়া জোরপূর্বক অন্যপ্রান্তে এওয়াজ বদলা কবলা দিতে বাধ্য করেন ওবায়দুল হক ও মিলন গং। জমি এওয়াজ বদলা করা হয়েছে চার শতক কিন্তু ওবায়দুল হক / মিলন গংরা জোর পূর্বক বাকি জমি দখল করার পাঁয়তারা করে বিভিন্ন রকম গাছগাছালী লাগায়। জায়গার মূল মালিক বাধা দিতে গেলে তাকে মারধর করে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়। শুধু তাড়িয়ে দিয়ে ক্ষান্ত হয় নাই তারা। ওবায়দুল হক এর ছোট ভাই জামাত শিবির থেকে সদ্য আওয়ামীলীগে যোগদান কারী রবিউল হক মিলন ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে এসে মাওলানা তমিজউদ্দীন এর বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। ভাংচুরের আওয়াজ শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে মামলার ধমক দিয়ে বলে বেশি কথা বললে ঘরে শুইতে দিবো না বলে হুমকি দেয়!
উল্লেখ্য, শিবিরকর্মী রবিউল হক মিলন মতিঝিল নাশকতা মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলার আসামী। ইতিপূর্বে একাধিকবার জেল খেটেছেন। এখন ছাত্রলীগে যোগ দিয়ে ঐসব মামলা থেকে রেহাই পাওয়ার চেষ্টা করতেছেন।
এ ঘটনা পরবর্তি অত্র ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ নুরুল ইসলাম আলমগীর এ বিষয় নিয়ে বিচার করবেন বলে তিনি ভিকটিমদের আস্থস্ত করেন। পরে অত্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও এলাকার বিশিষ্ট সমাজপতি জনাব এম এ হামিদ সাহেবকে বিষয়টি জানানো হলে অত্র ওয়ার্ডের মেম্বার সহ অনাকাংখিত ঘটনাটি নিরসনের লক্ষ্যে ২৩/৬/২০২০ মঙ্গলবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় সালিশের তারিখ ধায্য করা হলেও ওবায়েদ গং সময় চাওয়ায় শালিস অনুষ্ঠিত হয়নি। এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান এম এ হামিদ আগামী শুক্রবার সম্ভাব্য শালিসের তারিখ প্রদান করেন।।
এলাকাবাসী ও সচেতন মহল শালিস/ বিচার পিছিয়ে দেয়ায় হতাশা ব্যাক্ত করেন এবং দেরীতে হলেও সুষ্ঠ বিচার প্রত্যাশা করেন।।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x