মালালা নোবেল পুরস্কার পাওয়ায় অবাক হওয়ার কিছু নেই | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

মালালা নোবেল পুরস্কার পাওয়ায় অবাক হওয়ার কিছু নেই

17 October 2014, 2:38:55

দৈনিক আমাদের নাঙ্গলকোট ডটকম ডেক্স

মালালা নোবেল পুরস্কার
পাওয়ায়
অবাক হওয়ার কিছু নেই।

মালালা নোবেল পুরস্কার
পাওয়ায়
অবাক হওয়ার কিছু নেই।
পশ্চিমাদের
সুরে কথা বলে শুধু মালালা কেন
আগামীতে যদি লতিফ সিদ্দিকী নোবেল
শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হয়
তাতেও
অবাক হওয়ার কিছু নেই। মুসলিম
বিশ্বে যে বা যারা ধর্মের
বিশেষ করে ইসলামের
বিরুদ্ধে সোচ্চার
তাদেরকেই এই পুরস্কার
দিয়ে শুধু
তাকেই নয় অন্যদেরকেও এই
কাজে ব্রতি হতে উতসাহ দেয়া হয়।
যাতে করে নতুন মালালা,
তসলিমা নাসরিন বা লতিফ
সিদ্দিকীদের জন্ম হয়।
গান্ধী সারাজীবন সংগ্রাম
করেও নোবেল পুরস্কার কপালে জুটল
না আর
মালালার নামই শুনলাম দুই
চার বছর
হইলো ,মিডিয়ার কারণেই
মালালা আজকে এইখানে আমি ধিক্কার জানাই মালালার এই নোবেল
কে এবং মালালা কে। তার
সাথে ধিক্কার জানাই নোবেল
প্রাইজ
নিয়ে এই কুটিল রাজনীতিকে।
পাকিস্তানের মালালা একা নোবেল
পায়নি,
সাথে আছে পাকিস্তানের
চিরশত্রু ভারতেরও একজন,
কৈলাস। সব
নোবেল পুরস্কারের ঘোষণা আসে সুইডেনের স্টকহোম
থেকে। কিন্তু শুধু নোবেল
শান্তি পুরস্কারের
ঘোষণা আসে নরওয়ের
অসলো থেকে।
সম্পূর্ণ আলাদা একটি কমিটি ঠিক
করে দেয়
কে পাবে শান্তিতে নোবেল। আর
এখানেই হয় বিশ্বের
সবচেয়ে কুটিল ও
স্বার্থের রাজিনীতি। ১৯৯৪ সাল…
নোবেল শান্তি পুরস্কার পায়
তিনজন।
ফিলিস্তিনের ইয়াসির
আরাফাত,
ইসরায়েলের ইযহাক রাবিন, শিমন
পেরেজ। যে ইয়াসির আরাফাত
পশ্চিমাদের
চোখে সন্ত্রাসী ছিল,
তাকে হঠাৎ নোবেল দেওয়া হল!!
কেন? ইসরাইল জোর
করে যে ফিলিস্তিন দখল
করেছিল, এর প্রেক্ষিতে সৃষ্ট
দু’পক্ষের
মধ্যে গণ্ডগোল কমিয়ে শান্ত
করার উদ্দেশ্যেই আরাফাতকে নোবেল
হাতে ধরিয়ে দেওয়া হল।
ব্যালান্স
তৈরির জন্য দেওয়া হল
ইসরাইলেরও
দু’জনকে। ইস্রাইল- ফিলিস্তিনের
মধ্যে চুক্তি হল- অসলো চুক্তি।
ব্যস, সব
ঠাণ্ডা। মাঝখান থেকে লাভের
লাভ
ইসরাইলের জোর করে দখল করে নেওয়া ফিলিস্তিনের ভু-
খন্ড।
১৯৭৮ সাল… শান্তিতে নোবেল
পুরস্কার
পায় মিশরের আনোয়ার সাদাত
ও ইসরায়েলের মেনাশিম বেগিন
যৌথভাবে। কারণ আর কিছুনা।
আমেরিকার প্রেসিডেন্ট
জিমি কার্টার এই
দুজনকে ডেকে নিয়ে এসে জোর
করে একটা চুক্তি করায়- বিখ্যাত ক্যাম্প
ডেভিড চুক্তি। বিনিময়ে পরের
বছর
তাদের ধরে দেওয়া হয়
শান্তিতে নোবেল। মিশর হল
মুসলিম বিশ্বের
সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ। ব্যস,
মিশর তারপর থেকে ইসরাইলের
বিরুদ্ধে ঠাণ্ডা। ২০০৬
সালে আমাদের
ইউনুস সাহেব জড়িত সুদের সাথে আই মিন
অর্থনীতির সাথে। অথচ
তাকে দেওয়া হল
শান্তিতে নোবেল।
এমন একটা সময় দেওয়া হল যখন
বাংলাদেশের রাজনৈতিক অবস্থা অস্থিতিশীল, প্রধান
দুই দলের
বিরোধ। দু
নেত্রীকে সরাতে মাইনাস
টু ফরমলা এপ্লাই
করতে হলে তৃতীয় কোন শক্তিকে নিয়ে আসতে হবে।
দেওয়া হল
ড.ইউনুসকে নোবেল। দেশের
পরবর্তী অবস্থা তো সবাই
জানে। এবার
আসি মালালা প্রসঙ্গে। যে কারণে মালালাকে নোবেল
দেওয়া হয়, সেটাও ছিল
সাজানো নাটক। মালালার ওপর
কোন
হামলাই হয়নি। উত্তর
ওয়াজিরিস্তানে আক্রমণের একটা কারণ তৈরি করার জন্য
পুরো ঘটনাটি পাকিস্তান
গোয়েন্দা সংস্থা ও মার্কিন
সিআইএর
মাধ্যমে সাজানো হয়েছিল।
মালালা অভিনয় করল, দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানে আক্রমণ হল,
বিনিময়ে মালালাকে দেওয়া হল
শান্তিতে নোবেল।
পাকিস্তানের
একজন নোবেল পেল, ভারত আবার
নাখোশ হবে। ব্যালান্স তৈরির জন্য
যৌথভাবে দেওয়া হল ভারতের
কৈলাসক বাবুকেও। ব্যাস,
পাকিস্তান
খুশি, ভারতকে খুশি, আর
মালালাকে ব্যবহার করে নিজেদের
এজেন্ডাগুলোরও বাস্তবায়ন
হয়ে গেল।
এরই নাম নোবেল
শান্তি পুরস্কার।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: