মোবাইলে নেটওয়ার্ক না পেয়ে,মই বেয়ে গাছে উঠলেন মন্ত্রী | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

মোবাইলে নেটওয়ার্ক না পেয়ে,মই বেয়ে গাছে উঠলেন মন্ত্রী

6 June 2017, 9:27:33

আমাদের নাঙ্গলকোট

ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল রোববার তার সংসদীয় এলাকা বিকানের প্রত্যন্ত ধুলিয়া গ্রামে গিয়ে নেটওয়ার্কের এই সমস্যায় পড়েন বলে এনডিটিভির খবর।

প্রতিমন্ত্রী গ্রামের বাসিন্দাদের সমস্যার কথা শুনতে চাইলে স্থানীয় হাসপাতালে নার্সের সংখ্যা কম থাকার কথা তাকে জানানো হয়। সমস্যা মেটাতে তাৎক্ষণিকভাবে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে মোবাইল ফোন হাতে নেন মেঘওয়াল।

কিন্তু হাজার চেষ্টা করেও মোবাইলের নেটওয়ার্ক না পেয়ে প্রতিমন্ত্রী যখন হতাশ, তখন গ্রামবাসীরা তাকে জানান- এভাবে সারাদিনেও নেটওয়ার্ক মিলবে না।

তাহলে উপায়? উপায় হচ্ছে- ‘গাছে ওঠা’। ধুলিয়াবাসী মোবাইলে কথা বলার জন্য দিনের পর দিন ওই পদ্ধতিই ব্যবহার করে আসছে বলে জানানো হল প্রতিমন্ত্রীকে।

কিন্তু ৬২ বছর বয়সী মেঘওয়াল গাছে চড়বেন কী করে! সঙ্গে সঙ্গে আনা হল মই। এরপর সেই মই লাগানো হল গাছে। কিছুদূর ওঠার পর প্রতিমন্ত্রীর মোবাইলে  নেটওয়ার্ক মিললো।

থা শেষ করে তিনি যখন নামছিলেন, গ্রামবাসীর করতালি আর হর্ষধ্বনিতে চারপাশ তখন মুখর।

মইয়ে চড়ে প্রতিমন্ত্রীর মোবাইলে কথা বলার ভিডিও আর ছবি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

এনডিটিভি লিখেছে, মইয়ে উঠে মন্ত্রী বিশুদ্ধ পানির প্ল্যান্ট স্থাপন নিয়ে কথা বলছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মোবাইল নিয়ে এমন বিড়ম্বনার পর ওই গ্রামে তিন মাসের মধ্যে একটি মোবাইল টাওয়ার নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছন অর্জুন মেঘওয়াল। এজন্য ১৩ লাখ রুপি ও প্রয়োজনীয় বৈদ্যুতিক তারও বরাদ্দ দিতে বলেছেন তিনি।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: