শিরোনাম
◈ ক্ষমতার পতন ও অপেক্ষার মিষ্টি ফল-মহসীন ভূঁইয়া ◈ নাঙ্গলকোটে দুই গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তাকে খাল বানিয়ে নিরুদ্দেশ ঠিকাদার! ◈ নাঙ্গলকোটের তিনটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের টিম ◈ নাঙ্গলকোটে শত বছরের পানি চলাচলের ড্রেন বন্ধ ,বাড়িঘর ভেঙ্গে ২’শ গাছ নষ্টের আশংকা ◈ পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে খরচ বাড়লো ৪ হাজার কোটি টাকা ◈ অরুণাচল সীমান্তে বিশাল স্বর্ণখনির সন্ধান! চীন-ভারত সংঘাতের আশঙ্কা ◈ কুমিল্লার বিশ্বরোডে হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ইউলুপ- লোটাস কামাল ◈ দুই মামলায়খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আজ ◈ মাদকবিরোধী অভিযানএক রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ ◈ নাঙ্গলকোটে চলবে ৩ দিন ব্যাপী মাটি পরীক্ষা

যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা ছাড়া ‘এক সপ্তাহও টিকবে না’ মধ্যপ্রাচ্য- ডোনাল্ড ট্রাম্প

২৬ এপ্রিল ২০১৮, ১২:২৭:৩২

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমেরিকান প্রোটেকশন অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্রের সুরক্ষা’ পেতে হলে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি ‘অঢেল সম্পদশালী’ দেশকে অর্থ পরিশোধ করতে হবে। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা ছাড়া এই দেশগুলো এক সপ্তাহও টিকবে না।’

মঙ্গলবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের সঙ্গে একটি যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘ওই অঞ্চলের কয়েকটি অত্যন্ত ধনী দেশ রয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্র ও কিছুটা ফ্রান্সেরও সহায়তা ছাড়া সেগুলো ওখানে থাকবে না। আমরা তাদেরকে সুরক্ষা দিচ্ছি। এখন তাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে এবং যা ঘটছে তার জন্য মূল্য দিতে হবে।’

ট্রাম্প কোনো দেশের নাম বলেননি। কিন্তু জোর দিয়ে বলেছেন, ‘ওরা মূল্য পরিশোধ করবে এবং তাদের নিজেদের সৈন্য সিরিয়ায় মোতায়েন করতে হবে।’

ট্রাম্প সিরিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে মঙ্গলবার জোর দিয়ে বলেছেন, ওই অঞ্চলে তারা ইরানকে আধিপত্য বিস্তার করতে দিবেন না।

আলজাজিরা জানিয়েছে, ট্রাম্পের মন্তব্যের পর সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবায়ের বলেছেন, সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের উপস্থিতির জন্য কাতারকে টাকা দিতে হবে। কাতারে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ঘাঁটি রয়েছে।

আল-জুবায়ের আরো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র সৈন্য সরিয়ে নিলে এক সপ্তাহের মধ্যে কাতার সরকারের পতন ঘটবে।’

দোহা থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি ঘাঁটি রয়েছে যেখানে বর্তমানে নয় হাজারেরও বেশি মার্কিন সৈন্য রয়েছে। সৈন্যদের বেশিরভাগই বিমান বাহিনীর আর সেখানে রয়েছে ১০০টি যুদ্ধবিমান। এটি সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ডের প্রধান বিমান আক্রমণ পরিচালনা কেন্দ্র।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: