রায়কোট ইউনিয়ের মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ে নেই কোন শহীদ মিনার | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

রায়কোট ইউনিয়ের মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ে নেই কোন শহীদ মিনার

11 February 2017, 9:12:01

বাপ্পি মজুমদার ইউনুস-
আসছে ২১শে ফেব্রুয়ারি। ভাষা শহীদদের স্মরণে এই দিনে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারিতে যারা ভাষার জন্য নিজের জীবন আত্মত্যাগ করেছিলো তাদের প্রতি।

কিন্তু নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট ইউনিয়নের স্বনামধন্য একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ে নেই কোন শহীদ মিনার। এই স্কুলটি রায়কোট ইউনিয়নের প্রাণকেন্দ্র মাহিনী বাজারে অবস্থিত। যেখানে রয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়, রাজনৈতিক ব্যক্তিদের আনাগোনা এবং একটি প্রাইমারিসহ বেশ কয়েকটি স্কুল।

মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ের এই শহীদ মিনাররেই প্রতিবছর ২১ শে ফেব্রুয়ারিতে রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে, বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে এবং আশে পাশের নাম করার স্কুল- কলেজের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হতো। কিন্তু দুঃখের বিষয় গতবারের(২০১৬) মতো এইবছরও এই বিদ্যালয়ে নেই কোন শহীদ মিনার। গতবছরও(২০১৬) যখন মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার ছিলোনা তখন আমি স্কুলের কিছু ছোট ভাইদের নিয়ে আমার শ্রদ্ধাভাজন শিক্ষক জনাব Sushanta Kumardas এর অনুপ্রেরণা ও সহায়তায় ২০ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৪:০০ টা থেকে রাত ১১:০০ টা পর্যন্ত সময়ে মধ্যে নির্মাণ করি একটি অস্থায়ী শহীদ মিনার।

পরেরদিন ২১ ফেব্রয়ারির প্রথম প্রহরে এই অস্থায়ী শহীদ মিনারেই ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় ইউনিয়নের রাজনৈতিক দলগুলো, বিভিন্ন সংগঠন ও মাহিনী উচ্চ বিদ্যালয়সহ আশে পাশের বেশ কয়েকটি স্কুলের শিক্ষক- শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীরা। এবছরও নির্মাণ করা হয়নি কোনো শহীদ মিনার। তাই এই অল্প সময়ের মধ্যে যদি কোনো শহীদ মিনার নির্মান না করা হয় তাহলে ২১শে ফেব্রুয়ারির প্রথমে প্রহরে ওই ইউনিয়নের শত শত মানুষ ও কোমলমতী শিক্ষার্থীরা তাদের ভাষার জন্য আত্মত্যাগ করা ভাইদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো থেকে বঞ্চিত হবে।

তাই উক্ত স্কুল ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের প্রতি অনুরোধ রইলো দ্রুত একটি শহীদ মিনার নির্মাণের পদক্ষেপ নেয়ার জন্য।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: