রূপসা ঘাটে ট্রলারে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই, টোলে যাত্রী হয়রানী চরমে | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

রূপসা ঘাটে ট্রলারে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই, টোলে যাত্রী হয়রানী চরমে

12 June 2017, 6:06:12

মুহম্মদ নাঈমুজ্জামান শরীফ, খুলনা ব্যুরো
রূপসা ঘাটে ট্রলারে যাত্রী পারাপারে চরম অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা, ট্রলার মাঝিদের খামখেয়ালীপনা, শিশুশ্রম এবং ঘাট ইজারাদার কর্তৃক নিয়োজিত ব্যক্তিদের চরম হয়রানি, ইচ্ছামাফিক অর্থ আদায়, যাত্রীদের চেক পোষ্টের মতো ব্যাগ তল্লাশিসহ অতিরিক্ত অর্থ উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। যার কারনে জন দূর্ভোগ চরম শিখরে উঠলেও কেমন যেনো দেখার কেউ নেই।
স্বরেজমিন ও ভূক্তভোগিদের অভিযোগে জানা যায়, রূপসা ঘাটে প্রতিদিন ভোর থেকে শুরু করে দিবারাত্র সকল অনৈতিক কর্মকান্ড ও অনিয়মকে মেনেনিয়ে পারাপার হচ্ছে প্রায় লক্ষাধিক মানুষ। ট্রলার মাঝিদের ও ঘাট ইজারাদারের স্বেচ্ছাচারিতায় প্রতিনিয়ত সাধারন মানুষকে বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। রূপসা ঘাট থেকে যাত্রী পারাপারে জন প্রতি ট্রলারে ৩ টাকা ও ঘাটে ইজারা বাবদ ১ টাকা প্রদান করতে হয়। তবে ছোট ট্রলারে ২৫ জন এবং বড় ট্রলারে ৩০/৩৫ জনের পরিবর্তে ঈদকে সামনে রেখে ছোট/বড় সকল ট্রলারে যাত্রী বোঝাইয়ে রীতিমতো চালকরা প্রতিযোগীতায় নেমে পড়েছে। অতিরিক্ত বোঝাই ট্রলারের যাত্রীরা চরম আশংকা ও আতংকের মধ্যে প্রতিনিয়ত পারাপার হচ্ছে। কোন কোন ট্রলারের পাটাতনের তক্তা নষ্ট হওয়া স্বত্বেও চালকদের তা মেরামতের কোন উদ্যোগ গ্রহন করতে দেখা যায় না। তাছাড়া অধিকাংশ ট্রলারে বাধ্যতা মূলক রাতে আলো জ্বালানোর বিষয়টি এখনও অনেকটা উপেক্ষিত। বিশেষ করে নতুন কোন মালামাল, পন্যদ্রব্য ঘাট থেকে পারাপারের জন্য যাত্রীর কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত ওজনের অজুহাত তুলে ইচ্ছামতো টাকা আদায় করা হয়। একটি কম্পিউটার (পিসি) অথবা ব্যবহারের জন্য নতুন টিভি, ফ্যান কিংবা যে কোন জিনিস পশ্চিম রূপসা ঘাটের টোলঘর পার করতে হলেই ১০ টাকা থেকে শুরু করে ২০০ টাকা পর্যন্ত প্রদান করতে হয়। টাকা প্রদান না করলে কোন কোন ক্ষেত্রে যাত্রীরকে চরম নাজেহাল হতে হয়। সে ক্ষেত্রে যাত্রীদের অসহায়ের মত মেনে নেওয়া ছাড়া আর কিছুই করার থাকে না। কোন যাত্রী প্রতিবাদ করলে টাকা আদায়কারীরা অনেক সময় গায়ে হাত তুলতে দ্বিধাবোধ করে না। ভুক্তভোগী যাত্রীরা অবিলম্ভে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন। এ ব্যাপাওে রূপসা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.ইলিয়াছুর রহমান বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: