রোহিঙ্গা মুসলমানদের নির্যাতন, হত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগ জাতিসংঘের তদন্ত দলকে মি ঢুকতে দেওয়া হবে না | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

রোহিঙ্গা মুসলমানদের নির্যাতন, হত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগ জাতিসংঘের তদন্ত দলকে মি ঢুকতে দেওয়া হবে না

1 July 2017, 12:04:27

আমাদের নাঙ্গলকোট ডেস্ক:

রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতন, হত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগ তদন্তে জাতিসংঘ কোনো দল পাঠালে তাদের মিয়ানমারে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। অং সান সুচি সরকারের এক শীর্ষ কর্মকর্তা এ কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী সচিব কিয়াও জেয়া নামের ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ‘যদি তারা তদন্তের জন্য কোনো দল পাঠাতে চায় তবে তাদের মিয়ানমারে প্রবেশ করতে দেওয়ার কোনো কারণ আমরা দেখছি না।বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমাদের দূতাবাসগুলোকে এ অনুযায়ী নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আন্তর্জাতিক তদন্তের প্রয়োজন নেই উল্লেখ করে কিয়াও বলেন, ‘যেখানে আমাদের অভ্যন্তরীণ তদন্ত এখনও শেষ হয়নি সেখানে কেন তারা অহেতুক চাপ সৃষ্টি করতে চাইছে?’গত মার্চে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল রাখাইন রাজ্যে নির্যাতনের অভিযোগ এবং মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে জাতিগত দাঙ্গার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একটি তদন্ত দলের নাম প্রস্তাব করে। ওই সময় সুচি সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, তারা তদন্ত দলকে কোনো ধরণের সহযোগিতা করবে না।গত বছর অক্টোবরে রোহিঙ্গা ‘বিচ্ছিন্নতাবাদীরা’ মিয়ানমার সীমান্ত পুলিশের তিনটি চৌকিতে হামলা চালিয়ে ৯ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে। এর জের ধরে রাখাইন রাজ্যে সেনাঅভিযান চালানো হয়। অভিযোগ রয়েছে, সেনাবাহিনী শতাধিক লোককে গুলি করে হত্যা, অসংখ্য নারীকে ধর্ষণ ও বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে। ওই সময় প্রাণ ভয়ে প্রায় ৭৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে।
সুচি অবশ্য এসব অভিযোগ ও দাবি প্রত্যাখান করে আসছেন। চলতি মাসে সুইডেন সফরে জাতিসংঘের তদন্তদল মিয়ানমারে প্রবেশের বিষয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘জাতিসংঘের তদন্তদলের কারণে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে বৈরীভাব আরও বেড়ে যেতে পারে।’

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: