শনিবার সকাল ৮টায় খুলনা-কোলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস-২ ট্রেন ছেড়ে যাবে | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / বিস্তারিত

শনিবার সকাল ৮টায় খুলনা-কোলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস-২ ট্রেন ছেড়ে যাবে

7 April 2017, 10:33:19

থুলনা সংবাদদাতা

 আগামীকাল শনিবার থেকে চালু হচ্ছে খুলনা-কোলকাতা রুটের প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেন। মৈত্রী এক্সপ্রেস-২ নামের এই ট্রেনটি পরীক্ষামূলকভাবে শনিবার সকাল ৮টায় খুলনা স্টেশন থেকে ছেড়ে যাবে। সকাল ১০টায় বেনাপোলে স্থল বন্দরে ট্রেনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানের পর ট্রেনটি কলকাতা যাবে এবং রোববার সকাল ৮টা ৫ মিনিটে কোলকাতা থেকে খুলনায় ফিরে আসবে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে কবে নাগাদ এই রুটে ট্রেন চালু হবে-তা জানা যায়নি। ভাড়া নেয়া হবে কত টাকা তাও নির্ধারণ হয়নি। খুলনা রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার কাজী আমিরুর ইসলাম জানান, ৫টি বগি ও ১টি ইঞ্জিন নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে ট্রেন যাবে। এজন্য ট্রেনে কোনো সাধারণ যাত্রী নেওয়া হবে না। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও অতিথিরা ট্রেনের যাত্রী হবেন। তিনি জানান, খুলনা থেকে পেট্রাপোল হয়ে কলকাতার দূরত্ব ২০০ কিলোমিটার। আর এ জন্য সময় লাগবে মাত্র ৪ ঘণ্টা। রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ব্রিটিশ শাসনামলে খুলনা ও কলকাতার মধ্যে সরাসরি যাত্রীবাহী ট্রেন চালু ছিল। কিন্তু ১৯৬৫ সালে পাকিস্তান-ভারত যুদ্ধের পর থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় ৪৪ বছর পর ২০০৮ সালের পহেলা বৈশাখ ঢাকা-কোলকাতা রুটে প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেন মৈত্রী যাত্রা শুরু করে। এরপর থেকেই দেশের দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের সুবিধার জন্য খুলনা থেকে বেনাপোল হয়ে কলকাতা পর্যন্ত দ্বিতীয় মৈত্রী ট্রেন চালুর প্রক্রিয়া শুরু হয়। শুরুতে ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ এই রুটের ব্যাপারে উদাসীন থাকলেও পরে তারা সাড়া দেয়। রেলওয়ের মহাপরিচালক মোঃ আমজাদ হোসেন জানান, নিয়মিত ট্রেন চালুর জন্য সংযোগ লাইন সংস্কার, কাস্টমস, ইমিগ্রেশনসহ আনুষাঙ্গিক কাজ চলছে। উদ্বোধনের পর আপাতত সপ্তাহে একদিন যাতে ট্রেন চলে সেই প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। নিয়মিত চালুর বিষয়টি পরে আলোচনা করে জানানো হবে। এদিকে খুলনা-কোলকাতা রুটে ট্রেন চালুর সংবাদে উচ্ছাসিত খুলনার যাত্রীরা। বৃহস্পতিবার রেলওয়ের টিকিট কাউন্টারে মৈত্রী ট্রেনের বিষয়ে খোঁজখবর নিতে আসেন অনেক যাত্রী। তাদেরই একজন হাওলাদার এম আলাউদ্দিন জানান, চিকিৎসার জন্য বছরে ৮/১০ বার ভারতে যেতে হয়। প্রতিবারই তীব্র ভোগান্তি হয়। ট্রেনটি চালু হলে আমাদের কষ্ট কমে যাবে। প্রথম ট্রেনের যাত্রী হতে টিকিট কাটতে এসেছি। খুলনা চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, খুলনা-কোলকাতা রুটে যাত্রী ও মালবাহী ট্রেন চালু হলে এ অঞ্চলের ব্যবসা বাণিজ্যের নতুন দিগন্তের সূচনা হবে। পরীক্ষামূলক উদ্বোধন পর দ্রুত যাতে ট্রেনটি নিয়মিতভাবে চালুর জোর দাবি জানান তিনি।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: