শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সম্পত্তি দখল,আদালতের নির্দেশ অমান্য করে স্থাপনা নির্মান! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সম্পত্তি দখল,আদালতের নির্দেশ অমান্য করে স্থাপনা নির্মান!

7 June 2017, 11:24:05

 

মো.আব্দুর রহিম বাবলু,কুমিল্লা প্রতিনিধি:-

কুমিল্লার দেবীদ্বারের বরকামতা ইউনিয়নের বাগমারা গ্রামে এক শহীদ মক্তিযোদ্ধা পরিবারের ভূমি নিয়ে  আদালতে দায়ের করা একটি মামলার উপর শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে সকল প্রকার স্থাপনা নির্মানের নিষেধাজ্ঞা থাকার পরেও একটি প্রভাবশালী মহল নির্দেশ অমান্য করে স্থাপনা নির্মান অব্যাহত রেখেছে। এতে করে এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘিœত হওয়ার পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটিও চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে।

আদালতে দায়ের করা মামলা ও ভূক্তভোগী মোঃ কামাল হোসেন সূত্রে জানা যায়, জেলার দেবীদ্বার উপজেলার বরকামতা ইউনিয়নের বাগমারা গ্রামের শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মতি মিয়ার  পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ২’শ ৯৭ শতক বসত ও ফসলী জমি তার ওয়ারিশ মোঃ কামাল হোসেন গং দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছিল। কিন্তু স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্রের ইশারায় হাজি আব্দুল খালেক, হাজি বাবরী মিয়া, হাজি রেহান উদ্দিন, তাজুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান লিটন, রমিজ উদ্দিনসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের একটি ভূমি খেকো সিন্ডিকেট বিগত প্রায় ৮ বছর যাবত ওই শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসত ও ফসলী জমি জোর পূর্বক দখল করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এঅবস্থায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মতি মিয়ার ছেলে মোঃ কামাল হোসেন কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ গোলামুর রহমানের আদালতে সম্পত্তির দখল ঠেকাতে ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর একটি মামলা নং (১৬৮) দায়ের করেন। আদালত দায়ের করা মামলাটি তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জকে দায়িত্ব দেন। পরবর্তীতে ওসি’র নির্দেশে উক্ত মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করেন এসআই মোঃ আসাদুল ইসলাম। তদন্তকালে পুলিশ ঘটনার সত্যতা পেয়ে আদালতে ওই শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষে গত ৮ মে ২০১৭ ইং তারিখ প্রতিবেদন দাখিল করেন। এদিকে আদালতে মামলা দায়ের করার পর কিছুদিন প্রভাবশালীরা স্থাপনা নির্মান বন্ধ রাখলেও গত ১জুন  থেকে আবারো প্রভাবশালী চক্রটি একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীর উপস্থিতিতে পুণরায় ইট, বালু, সিমেন্ট, টিনসহ গৃহ নির্মানের সামগ্রী জড়ো কওে ঘর নির্মান অব্যাহত রাখে। বিষয়টি জানতে পেরে ভূমির মোঃ কামাল হোসেন গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি অবগত কওে কাজ বন্ধের জন্য অনুরোধ করলে বিবাদিগণ উত্তেজিত হয়ে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকী দেয়। পরে নিরুপায় হয়ে কামাল হোসেন বিষয়টি দেবীদ্বার থানাকে অবহিত করলে পুলিশ জানায়, আমরাতো আপনার জায়গা পাহাড়া দিতে পারবোনা। মামলা করেছেন, আদালত সিদ্ধান্ত জানাবে। এঅবস্থায় ভূমির মালিক শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা আদালতে চলমান ২’শ ৯৭ শতক ভূমির উপর রিসিভার নিয়োগ করে দখলদারদের কবল থেকে সম্পত্তিটি ফিরে পেতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: