শিক্ষামন্ত্রীকে কুমিল্লার এইচএসসি পরীক্ষার্থীর খোলা চিঠি… | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

শিক্ষামন্ত্রীকে কুমিল্লার এইচএসসি পরীক্ষার্থীর খোলা চিঠি…

10 April 2018, 6:17:50

মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী,
আপনি পরীক্ষার আগে সকল পত্রিকা এবং মিডিয়ায় আগাম নিশ্চয়তা দিয়েছেন যে- সারা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের এক প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া হবে। কিন্তু পরীক্ষার হল থেকে বের হয়ে ঠিক উল্টোটাই আমাদের সাথে হচ্ছে। আমাদের প্রাণের জেলা ‘কুমিল্লা’ কি বাংলাদেশের বাহিরে অবস্থিত? নাকি বাংলাদেশ এর আওতা বহির্ভূত করার ইচ্ছে আপনার মনে জন্মেছে? যদি তাই হয় তাহলে সরাসরি বলে দিন। মূলত একই প্রশ্নপত্রে পরীক্ষার মূল উদ্দেশ্য ছিলো- মেধা যাচাইয়ে সমবিচার প্রদান করা। আর সেই অনুযায়ী প্রচার করা হয়েছে।
স্যার, আমরা তো বলিনি আমাদের একই প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নিন। সেটা আপনি বলেছেন এবং আমাদের মা-বাবারা সেই আশাতেই বসে আছে যে- এবারসারাদেশের সাথে আমার সন্তানের মেধাটা যাচাই করা হবে। কিন্তু পরীক্ষার হল থেকে গত ০২/০৪/২০১৮ইং বের হয়ে যখন প্রত্যেকটা শিক্ষার্থীর বেহাল অবস্থা তখনই মা-বাবা প্রশ্ন করে বসে- ‘ওমা! তোর খালাতো বোনের পরীক্ষা তো ভালো হয়েছে! তোরটা হলো না কেন? এর মানে ভালো করে পরিসনি এবং বাকি পরীক্ষাগুলোতেও একই অবস্থা হবে। কিন্তু মা-বাবাকেএটা কে বুঝাবে যে- আমরা কুমিল্লার নিরীহরা ভিন্ন প্রশ্নপত্রে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছি। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগুলোতেই-বা কে বুঝাবে- আমরা কুমিল্লা বোর্ড থেকে পরীক্ষা দিয়েছি। তখন তো আমাদের প্রতিযোগিতাটা সারাদেশের শিক্ষার্থীদের সাথেই হবে। আর প্রতিযোগিতা-টা তখনই সঠিক হবেযখন গন্তব্যটা সবার জন্য সমান দূরত্বে থাকবে। কিন্তু আমাদের সাথে তা হচ্ছে না। আমাদের আলাদাভাবেই যাচাই করা হচ্ছে। কিন্তু গণনা করা হবেসারাদেশের সাথে। মা-বাবা তো এইসব কথা শুনতে নারাজ। তাদের ভালো রেজাল্ট চাই। ওই যে তার ছেলে এত পয়েন্ট পেয়েছে তুমি পাওনি কেনো? কিন্তু এটা কে বুঝাবে যে- দেশ আমাদের আলাদা করেই যাচাই করছে। হয়তো দেশ আমাদের আপন ভাবতে পারছে না।
স্যার, আপনি ভিন্ন প্রশ্নে পরীক্ষা নেন ভালো কথা কিন্তু সেটা পুরো দেশকে জানিয়ে দিন। আমাদের মা-বাবাও জানুক এবং উপলব্ধি করুক কুমিল্লা বোর্ড থেকে পরীক্ষাটা দেয়া উচিত হচ্ছে না।
স্যার, সকলে যখন ১০০ মিটার দৌঁড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে তখন আপনি যদি কুমিল্লাকে ১২০ মিটার দৌঁড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করান, আর যারা ১০০ মিটার দৌঁড়ে অংশগ্রহণ করলো তাদের বিজয়ী ঘোষণা করেন তাহলে সেটা কি বেমানান না?
এখন বলবেন রেজাল্ট কিছুই নয়, তুমি কতটা শিখতে পেরেছো সেটা দেখার বিষয়। কিন্তু স্যার, সেই আপনিই আবার রেজাল্ট দিয়ে মেধা যাচাই করে জীবন নির্ধারণ করেন। সকলের সাথে তুলনা করেন। তুলনা-ই যেহেতু করবেন তাহলে প্রশ্নপত্রটাও সকলের সাথে মিলিয়ে পরীক্ষা নিয়ে তুলনা করেন। কুমিল্লা পিছিয়ে নেই স্যার কুমিল্লাকে পিছিয়ে রাখা হচ্ছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x