শুধু আইনশৃংখলা বাহিনী দিয়ে কুমিল্লাকে মাদক মুক্ত করা যাবে না | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

শুধু আইনশৃংখলা বাহিনী দিয়ে কুমিল্লাকে মাদক মুক্ত করা যাবে না

8 June 2014, 4:02:59

 

 


একান্ত সাক্ষাতকারে বিজিবি ১০ অধিনায়ক

 

শাহাজাদা এমরান।।

বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) ১০ এর অধিনায়ক লে.কর্নেল শহিদুর রহমান বলেছেন, দেশের যে সকল জেলায় মাদকাসক্ত লোক বেশী তার মধ্যে কুমিল্ল­া অন্যতম। মাদকের করাল গ্রাসে কুমিল্ল­ার যুব সমাজ আজ বিপন্ন। ভবিষ্যত প্রজন্মকে রক্ষা করতে হলে কুমিল্লার সর্বস্তরের জনগণকে এখনি সচেতন হতে হবে। শুধু আইনশৃংখলা বাহিনী দিয়ে এ অভিশাপ থেকে জনগণকে মুক্ত করা যাবে না। কুমিল্লা কোটবাড়িস্থ ১০ বিজিবি সদর দপ্তরে দৈনিক আমাদের কুমিল্ল­াকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি একথা বলেন। বিজিবি ১০ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল শহিদুর রহমান বলেন, ১০ বিজিবির অধীন ১২১ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে। বিশাল এই সীমান্তটি পাহারা দেয়া ছাড়াও আমাদের সরকারি নির্দেশে দেশ এবং জাতীর বৃহৎ স্বার্থে অন্যান্য দায়িত্বও পালন করতে হয়। আমাদের সামর্থ্যরে সবটুকু দিয়ে আমরা আমাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। বর্তমানে বিজিবি কুমিল্লা কোন কাজটিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছে জানতে চাইলে শহিদুর রহমান বলেন, আমাদের সব কাজই চ্যালেঞ্জের। তবে মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান সুস্পস্ট। এখানে আমরা জিরো টলারেন্স। এ ক্ষেত্রে নূন্যতম ছাড় দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ১০ রাইফেল ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. শহিদুর রহমান আরো বলেন, আমার দেখা অন্যান্য শহরের তুলনায় কুমিল্ল­ায় মাদক সেবীদের সংখ্যা অনেক বেশী। স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ চেষ্টা ও জনগণের সচেতনতা ছাড়া শুধু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাদক নির্মুল করতে পারবে না। প্রতি মাসেই ২/৩টি করে সভা করে নাগরিকদের মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা বাড়াতে চেষ্টা করছি। বিজিবি সততা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে। মাদকের বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স দেখাচ্ছি। আমার এই ১০ ব্যাটালিয়নের এলাকায় ১২১ কিলোমিটার সীমান্তে ১১টি স্থানে কাঁটাতাড়ের বেড়া নেই। এ ছাড়াও পুরো সীমান্ত এলাকার রাস্তা ঘাট ঠিক না থাকায় টহল দিতে সমস্যা হয়। এমনকি সাইকেল বা মোটর সাইকেলেও যাওয়া যায়না। সীমান্ত দিয়ে বেশী আসছে শাড়ী, মোটরসাইকেল, ফেনসিডিল, গাঁজা, হিরুইন, মদ, নেশা জাতীয় ইঞ্জেকশণ, ইটাগ্রা ও ইয়াবা। তবে ইয়াবা কম। তিনি জানান, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২২ মে পর্যন্ত বিজিবি ১৭ কোটি ৩৯ লাখ ২৬ হাজার ৪শ’ ৩টাকার মাদকদ্রব্য ও অন্যান্য সামগ্রী আটক করে। এর মধ্যে ১ কোটি ৪২ লাখ ৬৮ হাজার টাকার ফেনসিডিল, ১ কোটি ৬০ লাখ ১০ হাজার ৭২২ টাকার অবৈধ ওষুধ ও ১ কোটি ৮০ লাখ ২১ হাজার ১৫০ টাকার মদ ও গাজা আটক করা হয়। মামলা করা হয়েছে ৯শ’৫৪টি। মালিকসহ ১৯টি ও মালিকবিহীন ৯শ’৩৫টি। আসামি আটক করা হয়েছে ৪৫ জন। সব সময়ই বিজিবির বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারীদের সাথে সখ্য থাকার অভিযোগ উঠে আসছে এবং বেশী মাল ধরে কাষ্টমসে কম মাল দেখানোরও অভিযোগ রয়েছে বিজিবির বিরুদ্ধে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিজিবি ১০ এর অধিনায়ক লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. শহিদুর রহমান বলেন, অভিযোগ সঠিক নয়। এ কথা ঠিক সব পেশাতে যেমন ভাল খারাপ রয়েছে বিজিবির মধ্যেও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে আমার কোন সদস্যের বিরুদ্ধে যদি কেউ সুনির্দিষ্ট ভাবে কোন অভিযোগ দিতে পারে তাহলে আমি কথা দিচ্ছি তার বিরুদ্ধে যত কঠোর ব্যবস্থ্ ানেয়া যায় তার সব টুকুই আমরা প্রয়োগ করব। অনেকে মনে করেন, আপনাদের বিভিন্ন আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে সমন্বয়হীনতার কারণেই কুমিল্লায় মাদক ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. শহিদুর রহমান বলেন, না , তা ঠিক না। আমরা জেলা টাস্কফোর্সের সাথে সমন্বয় করে কাজ করি। আমাদের সাথে সবার ভাল সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে। কুমিল্লার জনগণের উদ্দেশ্যে মন্তব্য করতে বললে বিজিবি ১০ এর অধিনায়ক লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. শহিদুর রহমান বলেন, কুমিল্লার সর্বস্তরের জনগনের উদ্দেশ্যে আমার একটাই অনুরোধ, মাদকের বিরুদ্ধে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আপনারা সক্রিয় হোন। মাদককে যে কোন মূল্যে নির্মূল করতে না পারলে দেশের যুব সমাজকে টিকিয়ে রাখা যাবে না। আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলি।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: