সমুদ্র জলে পা ভেজালেন প্রধানমন্ত্রী | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

সমুদ্র জলে পা ভেজালেন প্রধানমন্ত্রী

6 May 2017, 3:36:49

আমাদের নাঙ্গলকোট ডেক্সঃ মধুর চেয়ে আছে মধুর, সে এই আমার দেশের মাটি ।। আমার দেশের পথের ধূলা খাঁটি সোনার চাইতে খাঁটি।।… পাহাড় তারে আড়াল করে সাগর সে তার ধোয়ায় পা’টি।
‘খাঁটি সোনা’ কবিতায় কবি সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত এভাবেই লিখেছেন।
‘বাংলা’ কবির কাছে খাঁটি সোনা। বাংলার প্রতিটি মানুষও খাঁটি সোনার মতোই। বাংলার প্রকৃতির কাছে যখন কেউ যান তখন তার প্রাণেও বেজে ওঠে বাংলার প্রাণ। আর সে মানুষটি যদি হন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতির কন্যা শেখ হাসিনা… তার প্রাণেও বাজে বাংলার প্রাণ… সে উদাহরণ রয়েছে অনেক।
শনিবার (০৬ মে) কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায় ইনানীতে সমুদ্র পাড়ে গিয়ে আবারও তাই করলেন শেখ হাসিনা। সমুদ্র জলে পা ভেজালেন প্রধানমন্ত্রী, খালি পায়ে হেঁটে বেড়ালেন বালুকাবেলায়। সেখানে সমুদ্রের মৃদু মৃদু ঢেউ এসে ভিজিয়ে দিলো তার পা।
মধ্য বৈশাখের মধ্য দুপুরে কাজের ফাঁকে তিনি সৈকতে হেঁটে বেড়ানোর সময়টুকু বের করে নেন। সঙ্গে ছিলেন কয়েকজন দেহরক্ষী ও সফর সঙ্গীদের কয়েকজন।
ইনানী বিচে এর আগে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের পাশ ঘেঁষে ছুটে যাওয়া মেরিন ড্রাইভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে অনুষ্ঠানের পর বিচের দিকে হাঁটতে শুরু করেন তিনি। সমুদ্রের পানি যেখানটাতে আছড়ে পড়ছিলো তার কাছাকাছি গিয়ে পায়ের জুতো খুলে রাখেন। এরপর পা ভেজান সমুদ্রের জলে। বেশ কিছুটা সময় ধরে ধীরে ধীরে হাঁটতে থাকেন আর উপভোগ করেন মৃদু মৃদু ঢেউয়ের আছড়ে পড়া। কাছাকাছি গিয়ে নিরাপত্তা কর্মীরা শামুক-ঝিনুকে পা কাটতে পারে এমন শঙ্কার কথা জানিয়ে স্লিপার কিংবা স্যান্ডেল পরার পরামর্শ দেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‌‘‘কত এসেছি, কত হেঁটেছি, অভ্যেস আছে।’’
এ সময় তিনি ছোটবেলায় সমুদ্র পাড়ে বেড়ানোর স্মৃতিচারণ করেন বলেও আশেপাশে যারা ছিলেন তারা জানান।
সাগরের মৃদু ঢেউ এসে বার বার ধুইয়ে দেয় প্রধানমন্ত্রীর পা।
আর সে দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি হয় সঙ্গে থাকা দুই ফটো সাংবাদিক ইয়াসিন কবির জয় এবং এবিএম আখতারুজ্জামানের ক্যামেরায়।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: