সাব্বিরের শতকের পরও হারলো রাজশাহী | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

সাব্বিরের শতকের পরও হারলো রাজশাহী

14 November 2016, 9:03:05

অবশেষে বিপিএলে রান বন্যা। ব্যাট হাতে চার ছক্কার ফুলঝুরি ছোটান মুশফিকুর রহিম, শাহরিয়ার নাফিস আর সাব্বির রহমান। তবে সবাইকে ছাড়িয়ে যান সাব্বির। তারপরেও ৪ রানে হারতে হয় সাব্বির রহমানের দল রাজশাহী কিংসকে।

মিরপুরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে বরিশাল বুলস। তবে তাদের ব্যাটিং মোটেও কোনো বড় স্কোরের আভাস দেয়নি। পাওয়ারপ্লে শেষে যে তাদের স্কোর ছিলো ২ উইকেটে ২৮। দলীয় ২১ রানের মাথাতেই ফিরে যান দুই ওপেনার। দুজনকেই ফেরান রাজশাহীর ফরহাদ রেজা। সব মিলিয়ে আরো একটি লো স্কোরিং ম্যাচের বার্তাই দিচ্ছিলো বরিশালের ব্যাটিং।

দলের রানের গতি বাড়ান শাহরিয়ার নাফিস ও মুশফিকুর রহিম। তাদের জুটিতে বরিশাল বুলসের রান দ্রুত বাড়তে থাকে। এবারের আসরের প্রথম শতরানের জুটিও গড়েছেন তারা। ১১২ রানের  থামে এ জুটি।

ব্যাট হাতে রাজশাহীর বোলারদের ওপর বেশ চড়াও হয়ে খেলেন দুজন। দুজনেই অর্ধশতক তুলে নেন। দলীয় ১৩৩ রানের মাথায় ড্যারেন স্যামির বলে আউট হন নাফিস। তবে এর আগের ওভারেও দুই ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন তিনি। ঐ ওভারেও হাঁকিয়েছিলেন এক ছয় আর এক চার। ৪ টি চার আর ৪ টি ছক্কা সমৃদ্ধ ৮১ বলে ৬৩ রানের ইনিংস খেলেন নাফিস।

প্রায় প্রতি ওভারেই বাউন্ডারি আসছিলো দুজনের ব্যাট থেকে। মুশফিকের দারুণ স্লগ সুইপ দেখা গিয়েছে বেশ কয়েকটি। রাজশাহীর ফিল্ডাররা ব্যস্ত ছিলো বল তাড়ায়।

নাফিস-মুশফিকের জুটি ভাঙার পর তাণ্ডব শুরু করেন লঙ্কান অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা। আবুল হাসানকে লং অনের ওপর বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে সেই তাণ্ডবের শুরু। আর সাথে অধিনায়ক মুশফিকের ঝড়। শেষ তিন ওভারে দুজন মিলে রান তুললেন ৪৭। ৫২ বলে ৮১ করে অপরাজিত থাকলেন মুশফিক। আর রাজশাহীর লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৮৯।

শুরুতেই ধাক্কা খায় পদ্মা পাড়ের দল। দ্বিতীয় বলেই হারায় রকিবুল হাসানকে। ব্যাট হাতে নেমেই চড়াও হন সাব্বির রহমান। দলকে জয়ের স্বপ্নও দেখান তিনি।

কখনো ডাউন দ্যা ট্র্যাকে এসে কখনো ক্রিজে দাঁড়িয়ে, সাব্বির একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাচ্ছিলেন। তবে রাজশাহীকে বিপদে ফেলে দেন আল-আমিন হোসেন। পঞ্চম ওভারে পেরেরার দারুণ ক্যাচে আল-আমিনের শিকার হন ওপেনার মুমিনুল। পরের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন উমার আকমলকে।

তবে তা কোনো প্রভাব ফেলেনি সাব্বিরের মারমুখী ব্যাটিংয়ে। খুনে মেজাজে যেন খেলতে থাকেন তিনি। মাত্র ২৬ বলেই অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি। অর্ধশতকের পথেই তিনটি চার আর তিনটি ছক্কা মারেন। সাব্বিরকে সঙ্গ দেন প্যাটেল। আবু হায়দারের বলে ১৫ রান করে মুশফিকের  গ্লাভসবন্দী হন তিনি। তবে তখনো থামেনি সাব্বির ঝড়। ১৪তম ওভারে মনির হোসেনকে হাঁকান দুই বলে দুই ছক্কা। পরের ওভারে আবু হায়দারের বলে শেষ তিন বলে করেন ১৬। ঐ ওভারে শতক তুলে নেন। অথচ ব্যাক্তিগত ১৪ রানের মাথাতেই একটি জীবন পেয়েছিলেন সাব্বির। বরিশালকে সেই ভুলের জন্য ভালোই ধুঁকতে হয়েছে।

১৬ তম ওভারে আল-আমিনের বলে আউট হন সাব্বির। ৬১ বলে ১২২ রানের ইনিংস খেলে সাজঘরে ফিরে যান। তারপর হাল ধরেন অধিনায়ক স্যামি। তবে শেষ ওভারের আগের ওভারে এমরিটের বলে স্যামি বোল্ড হলে রাজশাহী চাপে পড়ে যায়। ১৯ বলে ২৭ করেন স্যামি।

শেষ ওভারে রাজশাহীর দরকার ছিলো ৯ রান। থিসারা পেরেরা মাত্র ৪ রান দেন। ৪ রানের জয় পায় মুশফিকের বরিশাল বুলস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ বরিশাল বুলস ১৯২/৪, ২০ ওভার
মুশফিক ৮১, নাফিস ৬৩, পেরেরা ২৪
ফরহাদ ২২/২, স্যামি ৩৬/১

রাজশাহী কিংস ১৮৮/৪, ২০ ওভার
সাব্বির, ১২২, স্যামি ২৭, প্যাটেল ১৫
আল-আমিন ৩৫/৩, আবু হায়দার ২৯/১

ম্যাচসেরাঃ সাব্বির রহমান

 

মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল, ক্রীড়া প্রতিবেদক, দৈনিক আমাদের নাঙ্গলকোট

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: