সৈয়দ রাসেলের দুটি বছর হারিয়ে গেল একটি হসপিটালের ভুল রিপোর্টের জন্য! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিস্তারিত

সৈয়দ রাসেলের দুটি বছর হারিয়ে গেল একটি হসপিটালের ভুল রিপোর্টের জন্য!

14 March 2017, 9:52:36

সৈয়দ রাসেল, বাংলাদেশ ক্রিকেটে যতগুলো আক্ষেপ আছে তার মধ্যে একটি। আশা জাগিয়ে দলে ঢুকেছিলেন। বাঁহাতি মিডিয়াম পেস বলে সুইং দিয়ে মাতিয়েছিলেন সবাইকে।

২০০৫ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট ও ওয়ানডে অভিষেক। বাংলাদেশের হয়ে ছয় টেস্টে নিয়েছেন ১২ উইকেট। ইকোনমি ৩.৯৩।

চমক দেখিয়েছিলেন ওয়ানডেতে। ৫২ ওয়ানডেতে ৬১ উইকেট নিলেও ছিলেন মিতব্যায়ী বোলারদের একজন। ইকোনমি রেট ছিল মাত্র ৪.৬৩। ২০০৭ বিশ্বকাপের ভারত বধে ছিলেন মাশরাফির পার্শ্বনায়ক।  প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ৬৬ ম্যাচে নিয়েছেন ১৮৫ উইকেট। কিপটে বোলিং দিয়ে নজর কেড়েছিলেন সবার। মাত্র ২.৬৩ এর ইকোনমি রেটটা যে নজর কারার মতই ছিল।

কিন্তু কি থেকে কি হয়ে গেল ২০১০ সালের পরেই জাতীয় দল থেকে বাদ পরেন। চালিয়ে যান ঘরোয়া ক্রিকেট। কিন্তু ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে কাঁধের  ইঞ্জুরির কারনে ছিটকে যান ২০১৫ সালে। দুই বছর পর এসে জানতে পারলে তেমন বড় কোন ইঞ্জুরিতেই পরেন নি।

এপোলো হসপিটালে এমআরআই রিপোর্টে বলা হয়েছিল তার চারটি টেন্ডন ছিড়ে গিয়েছে। কিন্তু মুম্বাই এ গিয়ে পরীক্ষা করে দেখলেন ফল একদম ভিন্ন। কাঁধ শতভাগ সুস্থ। একটি ট্যান্ডন কিছুটা শুকিয়ে গিয়েছে আর সেটা থেরাপি নিলে ৩/৪ সপ্তাহেই ঠিক হয়ে যাবে।

আজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক স্ট্যাটাসে হারিয়ে যাওয়া দুটি বছরের জন্য আক্ষেপ করেন। একটি ক্রিকেটারের জীবন থেকে দুটি বছর হারিয়ে গেল একটি হসপিটালের ভুল রিপোর্টের জন্য।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: