স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে লাকসাম জেনারেল হসপিটাল বন্ধ | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে লাকসাম জেনারেল হসপিটাল বন্ধ

20 April 2016, 10:52:55

Laksam-jenarel-hospital-pic-20.04.2016.doc

মোজাম্মেল হক আলম:
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে নানা অনিয়মের অভিযোগে ২০ এপ্রিল বুধবার লাকসামে একটি প্রাইভেট ক্লিনিক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। লাকসাম জেনারেল হসপিটালে চিকিৎসা সেবা গ্রহীতা রোগীদের থেকে অধিক অর্থ আদায়সহ নিয়ন্ত্রনহীন কার্যক্রম ও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে হসপিটালটি বন্ধ ঘোষণা করেন। এছাড়াও হসপিটালটি বন্ধ রেখে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে অনিয়মের বিষয়ে কারণ দর্শানোর নিদের্শনা প্রদান করা হয়।

জানা যায়, গত মার্চ মাসে লাকসামে বেশ কয়েকটি প্রাইভেট ক্লিনিকে স্বাস্থ্য সেবারমান নিশ্চিত করার লক্ষে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় লাকসাম জেনারেল হসপিটাল ফার্মেসীতে ভেজাল ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ, অপরিচন্ন ও সংকোচিত অপারেশন থিয়েটার, ব্যবস্থাপত্র, বেড ও কেবিন, প্যাথলজি টেষ্টে অতিরিক্ত ফি আদায়সহ নিয়ন্ত্রনহীন কার্যক্রমের অভিযোগ এনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে রিপোর্ট প্রদান করা হয়। এর পরিপেক্ষিতে কুমিল্লা সিভিল সার্জন প্রাইভেট ক্লিনিকটি বন্ধ ঘোষণা করেন। এতে হসপিটালে ভর্তি ও জরুরী বিভাগের রোগীরা চিকিৎসা না পেয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েন।

লাকসাম জেনারেল হসপিটালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোঃ আলী আক্কাছ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডাঃ মুজিবুর রহমান বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুসারে হসপিটালটি বন্ধের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে অনিয়মের বিষয়ে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য:

x