হোমনায় পুলিশের অভিযানে অপহৃত শিশু উদ্ধার | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / নাঙ্গলকোট / বিস্তারিত

হোমনায় পুলিশের অভিযানে অপহৃত শিশু উদ্ধার

12 July 2017, 8:24:50

হালিম সৈকত কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লার হোমনায় পুলিশের এস আই গোলাম আজমের সফল অভিযানে ৩ দিনের মধ্যেই  অপহৃত শিশু উদ্ধার করা হয়েছে। উপজেলার চাঁন্দের চর ইউনিয়নের শোভারামপুর ২ হতে অপহৃত শিশুটি ফিরে পেয়েছে তার বাবা মার কাছে। অপহৃত শিশুটির নাম আবদুল্লাহ আল মামুন (৭ )। তাকে  তিন দিন পর ঢাকা মহাখালি ওভার ব্রীজের নীচ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

উপজেলার শোভারামপুর গ্রামের শরিফা বেগম নামে তার এক আত্মীয় চকলেট খাবার লোভ দেখিয়ে অপহরন করে বলে জানায় সে। অপহৃত শিশু উপজেলার শোভারামপুর গ্রামের আবদুল ওহাবের ছেলে ।

অপহরনকারী মহিলাটি একই উপজেলার সিতারামপুর গ্রামের ফুল মিয়ার মেয়ে । সে অপহৃত শিশু মামুনের চাচির ছোট বোন । থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ৮ জুলাই উপজেলার শোভারামপুর গ্রামের ওহাব মিয়ার সাত বছরের ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন নিখোঁজ হয় ।

কিন্ত ওই দিনই ওহাব মিয়ার শালিকা শরিফা বেগম তার বাড়িতে বেড়াতে আসে । কিন্ত শিশু মামুন নিখোঁজ হওয়ার পর শরিফাকে বাড়িতে না দেখতে পেয়ে সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ শরিফা বেগমের মা মরিয়ম বেগমকে কৌশলে জিজ্ঞাসাবাদ করে নিশ্চিত হয়েছে যে শরিফা বেগমই শিশুটিকে অপহরন করে তার শশুর বাড়ি শেরপুর নিয়ে গেছে ।

এর পর পুলিশের তৎপরতায় অপহরনকারীরা মঙ্গলবার সকালে শিশুটিকে ঢাকার মহাখালী ওভার ব্রীজের নীচে ছেড়ে দেয়।

হোমনা থানা পুলিশের এস আই গোলাম আযম ফোর্স নিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। অপহৃত শিশু মামুন জানায় ,চকলেট কিনে দেবার কথা বলে চাচির বোন আমাকে তার বাড়িতে নিয়ে গেছে। ওহাব মিয়া বলেন, শরিফা আমার ভাইয়ের শালি ,আত্মীয় হয়ে আমার সর্বনাশ করে ছিল।

আল্লাহর রহমতে আমার ছেলে রক্ষা পেয়েছে। হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জানান, অপহরণ কারীর মাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারি শিশুটি শেরপুর আছে । এরপর মোবাইল টেকিং এর মাধ্যমে কৌশলে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে ।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: