হোমনায় মেঘনা নদীতে যুবলীগ নেতার বালু মহালে পুলিশি অভিযানের ঘটনায় ৩টি মামলা | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ

হোমনায় মেঘনা নদীতে যুবলীগ নেতার বালু মহালে পুলিশি অভিযানের ঘটনায় ৩টি মামলা

15 November 2016, 10:20:00

সিনিয়র রির্পোটার, এমএ কাশেম ভূঁইয়া-
মেঘনা নদীতে “ডিকচর বালুমহাল” নামে কালাপাহারিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতার বালুমহালে কুমিল্লার হোমনা থানা পুলিশ অভিযানে বালু মহালের লোকজনের সাথে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় আটক ২ স্পিটবোট চালকসহ ২০ জনকে আসামী করে পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করেছে থানা পুলিশ।
ডাকাতির প্রস্তুতি, অস্ত্রÑবিস্ফোরক ও পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার অভিযোগ এনে এই তিনটি মামলা হয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা যায়।
মেঘনা চন্দনপুর এলাকার লোকজন জুয়েল ও রবিউলকে ভাড়ায় চালিত স্পিডবোট চালক বললেও পুলিশের খাতায় তারা অস্ত্রধারী ডাকাত। এবিষয়ে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেসকন্ফারেন্সও করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও বালুমহালের লোকজন সুত্রে জানা যায়, “ডিকচর বালুমহাল” নামে বৈধ ইজারা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ মেঘনা নদীর নিচ কালাপাহারিয়া মৌজা থেকে বালু উত্তোলন করছেন নারায়নগঞ্জ জেলার আড়াইহাজারের কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম স্বপন। কিছুদিন যাবৎ একই অঞ্চলের কদমীর চর মৌজা থেকে আব্দুস সাত্তার ও রুক্কু মেম্বার নামে ২বালুদস্যু অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে বলে ডিকচর বালু মহালের অভিযোগ। এরই জের ধরে শনিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্তÍ টানা ২ঘন্টা নৌপথে হোমনা থানা পুলিশ অভিযান চালায়। এক পর্যায়ে ৩টি স্পিটবোট ফেলে সন্ত্রাসীরা পিছু হটলে পুলিশ আহত ২জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে স্পিটবোসহ থানায় নিয়ে আসার সময় ফের হামলা চালায়। এসময় পুলিশ ১৯রাউন্ড রাবার বুলেট ও গুলি ছুড়ে বলে জানা যায়। পরে থানায় এনে স্পিটবোট তল্লাসি করে আগ্নেয়াস্ত্রসহ গোলাবারুদ ও মালামাল পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে কালাপাহাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন দৈনিক সংবাদকে বলেন, সাত্তার ও রুক্কু মেম্বারের সাথে গোপন সক্ষতা করে হোমনা থানা পুলিশ অবৈধভাবে কালাপাহারিয়া অঞ্চলে এসে হামলা চালায়। এখন ডাকাতির নাটক সাজিয়ে ঘটনা ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টা করছে। তিনি আরোও বলেন, সাত্তার-রুক্কু মেম্বারের এবং পুলিশের মোবাইল কল লিষ্ট চেক করলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যাবে। নিহত ডালিম স্বপন চেয়ারম্যানের চাচাতো ভাই বললেও আটককৃতরা তার কর্মী কি না সে জানে না বলে জানান।
এ বিষয়ে আব্দুস সাত্তারের মোবাইলে কল দিলে রং নাম্বার বলে ফোন কেটে দেন এবং রুক্কু মিয়া বলেন, দেখি আমি আপনার সাথে সাত্তারকে কথা বলানোর চেষ্টা করছি।
হোমনা থানা অফিসার ইনচার্জ রসুল আহমেদ নিজামী সাংবাদিকদের জানান, নৌপথে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২জলদস্যু ৩টি এলজি, ১পিস্তল, ৭টি তাজা বোমা, ১৪টি কার্তুজ, ৩টি বুলেট, ৪টি হেলম্যাট ও ১৮টি লাইফ জ্যাকেটসহ ৩টি স্পিডবোট জব্দ করা হয়। কারো সাথে সক্ষতা করে নয়; বরং ডাকাদলকেই আটক করেছি এবং তাদের নিকট থেকে বিপুল পরিমান অস্ত্রশস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান। এবিষয়ে ৩টি মামলা করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত শনিবার হোমনার মেঘনা নদীতে যুবলীগ নেতার বালুমহালে অভিযান চালায় পুলিশ। এতে ডালিম নামে ১জন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায় এবং পুলিশসহ আহত হয় আরো অন্তত ৩জন। এতে ২জনকে আটকসহ বিপুল পরিমান আগ্নেয়াস্ত্র গোলাবারুদ উদ্ধার করে হোমনা থানা পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে হোমনা থানায় অস্ত্র, ডাকাতির প্রস্তুতি ও পুলিশের উপড় হামলার ঘটনায় পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় রবিউল ও জুয়েলকেসহ ২০জনকে আসামী করা হয়।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: