১১৮ বছর বয়সী নাঙ্গলকোটের মুুক্তিযোদ্ধা মুজা মিয়া আর নেই! | আমাদের নাঙ্গলকোট
সর্বশেষ সংবাদ
◈ বঙ্গবন্ধুর মানবিক গুনাবলী ও ধর্মীয় চেনতা-মোহাম্মদ হেদায়েত উল্লাহ ◈ সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন সব ছুটি বাতিল! ◈ সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেয়া সেই লিগ্যাল নোটিশ প্রত্যাহার ◈ বিশ্ব পর্যটন দিবস ও আমাদের সম্ভাবনা ◈ মোল্লা নিয়ে আলোচনা -সমালোচনা- এ,কে,এম মনিরুল হক ◈ বাইয়ারা প্রবাসী কল্যাণ ইউনিট’র বাহারাইন শাখা কমিটি গঠন ◈ পাই যে কৃপার ভাগ – মোঃ জহিরুল ইসলাম। ◈ কুমিল্লায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে জুতা পেটা খাওয়া ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার ◈ সামাজিক সংগঠন ”খাজুরিয়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার” ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন ◈ দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম মজুমদার ◈ শিক্ষকদের মূল্যায়ন কতক্ষণ করবে- জহিরুল ইসলাম ◈ শুধু ভুলে যাই- গাজী ফরহাদ
প্রচ্ছদ / নাঙ্গলকোট / বিস্তারিত

১১৮ বছর বয়সী নাঙ্গলকোটের মুুক্তিযোদ্ধা মুজা মিয়া আর নেই!

5 July 2017, 2:09:31

 

জামাল উদ্দিন স্বপন:

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার দৌলখাড় ইউনিয়নের নারান বাতুয়া গ্রামের প্রবীন মুক্তিযোদ্ধা মুজামিয়া আর নেই। তিনি ৪ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ৮ টা ৪৫ মিনিটে নিজ বাড়িতে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্না… রাজেউন। তার বয়স হয়েছিল ১১৮ বছর। মৃত্যুকালে তিনি ৪ ছেলে ৬ মেয়ে, অসংখ্য নাতি-নাতনীও পুতীসহ আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। তার প্রথম জানাযা নারানবাতুয়া রাস্তার মাথায়, দ্বিতীয় জানাযা নারানবাতুয়া নিজ বাড়িতে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা নিবার্হী অফিসার সাইদুল আরীফ, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আইয়ুব, থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের পক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজাহান,শিক্ষাবিদ আক্তারুজ্জামান, ডা. শাহ আলম চিশতী, গাজী মাসুদ, দৌলখাড় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবদুল কাদির, গাজী কালু সাহেব, মুক্তিযোদ্ধা আরিফুর রহমান অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম দৌলখাড়, সাবেক চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল  মতিন, মুজা মিয়ার বড় ছেলে মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান,বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন, মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস,সাংবাদিক জামাল উদ্দিন স্বপন, কবি এস এম আবুল বাশার, কবি আজিম উল্যাহ হানিফসহ রাজনৈতিক,সামাজিক, সাংস্কৃতিকও আশেপাশের গ্রামের গণ্যমান্যব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য যে, বীরমুক্তিযোদ্ধা মুজা মিয়া ১৮৯৯ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মাধ্যমিক পর্যন্ত পড়াশুনা করেন। তিনি বিট্টিশ শাসনামলে বিট্টিশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। সেখানে ওয়ারেন্ট অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩৯ সালে শুরু হওয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তিনি অংশগ্রহণ করেন। সে যুদ্ধে তিনি জাপান-বিট্টিশ লড়াইয়ে অংশ নেন। ১৯৬৫ সালে পাক পাকিস্তান-ভারত যুদ্ধেও অংশ নেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের মহান মুক্তিযুদ্ধেও তিনি অংশগ্রহণ করেন। রাত ১২ টায় শেষ জানাযা শেষে রাষ্ট্রীয় মযার্দায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। ওই জানাযায় ইমামতি করেন সেনাবাহিনীর একজন মেজর। প্রায় ২৪ জন সেনাবাহিনী উপস্থিত ছিলেন। এসময় সেনাবাহিনী তাকে ৩ হাজার টাকা, ১টি পতাকা পরিবারের হাতে ও মরদেহের উপর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষে ফুলের ঢালা দেয়। ১১৮ বছর বয়সী সেনাবাহিনী ও ৩টি যুদ্ধের বীরমুক্তিযোদ্ধা মুজামিয়ার মৃত্যুতে নাঙ্গলকোট,লাকসাম,কুমিল্লাসহ সারাদেশের অনেক বিশিষ্টজন শোক প্রকাশ করেছেন।

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: