শিরোনাম
◈ ক্ষমতার পতন ও অপেক্ষার মিষ্টি ফল-মহসীন ভূঁইয়া ◈ নাঙ্গলকোটে দুই গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তাকে খাল বানিয়ে নিরুদ্দেশ ঠিকাদার! ◈ নাঙ্গলকোটের তিনটি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের টিম ◈ নাঙ্গলকোটে শত বছরের পানি চলাচলের ড্রেন বন্ধ ,বাড়িঘর ভেঙ্গে ২’শ গাছ নষ্টের আশংকা ◈ পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে খরচ বাড়লো ৪ হাজার কোটি টাকা ◈ অরুণাচল সীমান্তে বিশাল স্বর্ণখনির সন্ধান! চীন-ভারত সংঘাতের আশঙ্কা ◈ কুমিল্লার বিশ্বরোডে হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ইউলুপ- লোটাস কামাল ◈ দুই মামলায়খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আজ ◈ মাদকবিরোধী অভিযানএক রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১ ◈ নাঙ্গলকোটে চলবে ৩ দিন ব্যাপী মাটি পরীক্ষা

৭২ ঘন্টা পানিতে ডুবে থাকতে পারেন আমাদের নাঙ্গলকোট’র দেবিদ্বার প্রতিনিধি মিজান!

২৩ এপ্রিল ২০১৮, ১১:০৫:৪২

আমাদের নাঙ্গলকোট ডেস্ক ●
কুমিল্লার স্কুল শিক্ষক মিজান চৌধুরী। তিনি অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ৭২ঘন্টা পানিতে ডুবে থাকার দাবি করেছেন। সর্বশেষ গত ১৪ এপ্রিল কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় বৈশাখী মেলা উদযাপন উপলক্ষে উপজেলার পুকুরে ১ ঘন্টা ১০ মিনিট পানির নিচে ডুবে থাকেন। এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবীন্দ্র চাকমাসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবীন্দ্র চাকমা এই প্রতিবেদককে বলেন,আমাদের সবার সামনে স্কুল শিক্ষক মিজান চৌধুরী কোনো সাপোর্ট ছাড়া ১ ঘন্টা ১০ মিনিট পুকুরের পানির নিচে ডুবে ছিলেন। বিষয়টি সত্যি বিস্ময়কর।

মিজান চৌধুরী বলেন, তিনি সর্বোচ্চ ৭২ ঘন্টা পানির নিচে ডুবে থাকতে পারেন। তিনি এ পর্যন্ত ৩০টি ডুবন্ত প্রদর্শনী করেছেন। অনেকে তাকে মৎস্য মানব হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। ১৯৮৩ সালে ৮ম শ্রেণির ছাত্র থাকাকালীন সময় থেকেই দীর্ঘক্ষণ পানির নিচে ডুবে থাকার চর্চা শুরু করেন।

দীর্ঘ ১২ বছর একটানা অনুশীলন করার পর ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর কুমিল্লা সদরের কালীর বাজার ইউনিয়নের মনশাসন গ্রামের ভূইয়া বাড়ির পুকুরে ৩০ ঘন্টা পানির নিচে ডুবে থাকেন। প্রদর্শনী শেষে তৎকালীন জেলা প্রশাসক হুমায়ুন খান পন্নী তাকে প্রশংসাপত্র প্রদান করেন। এরপর ১৯৯৬ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা সদরের নাগ বাড়ির পুকুরে নূর সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ২৪ ঘন্টার ডুবন্ত প্রদর্শনী করেন।

২০০০ সালের ১৪ এপ্রিল টাঙ্গাইল জেলার কালমেঘা ইউনিয়নে, একই সালে ১ মে চাঁদপুরে মতলব উপজেলার ঘোড়াধারি গ্রামের প্রধানিয়া বাড়ির পুকুরে ২৪ ঘন্টা ডুবন্ত প্রদর্শনী করেন। একই বছর ১৩ সেপ্টেম্বর কচুয়া সরকারি হাই স্কুল মাঠ সংলগ্ন পুকুরে ৭২ ঘন্টা পানিতে ডুবে থাকার প্রদর্শনী করেন।

সেখানে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি প্রধান অতিথি ছিলেন। ২০১৭ সালের ২৬ মার্চ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার দুয়ারিয়া এজি মডেল একাডেমির উদ্যোগে ডুবন্ত প্রদর্শনী করেন। তিনি বলেন, দীর্ঘক্ষণ পানির নিচে ডুবে থাকলে তার শরীরে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় না।

তিনি পানির নিচে চা, দুধ, ফল, চকলেট ও অন্যান্য খাবার গ্রহণ করতে পারেন। হাতের ইশারায় দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরও দিয়ে থাকেন। তিনি ৩/৪ ফুট পানির নিচে চেয়ারে বসে থাকেন। উপরে গান বাজালে তিনি তা শুনে সময় কাটান। মিজান চৌধুরীর ইচ্ছা এক ডুবে ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করে বাংলাদেশের জন্য সম্মান ও গৌরব বয়ে আনা।

এজন্য তিনি ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি চাঁদপুর কচুয়া উপজেলার আতিশ্বর গ্রামের চৌধুরী বাড়িতে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ আলী আর্শ্বাদ চৌধুরী। ৫ ভাইয়ের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। ১৯৯২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ পাস করেন। দীর্ঘ ২৫ বছর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলান মোহাম্মদপুর এ.আর উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। তার ইচ্ছা ছাত্র ছাত্রীদের জন্য কল্যাণমূলক কাজ করে যাওয়া।

কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান বলেন,সায়েন্টিফিকেলি এতক্ষণ কারো পানির নিচে থাকা সম্ভব নয়। অলৌকিক বা অন্য কোন কৌশল আছে কিনা  তিনিই ভালো জানেন?

 

Amader Nangalkot'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।  আমাদের নাঙ্গলকোট পত্রিকা তথ্য মন্ত্রনালয়ের তালিকাভক্তি নং- ১০৫।

পাঠকের মন্তব্য: